নিউজ ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অস্ত্র নিয়ে পোজ দেয়া সংক্রান্ত আলোচনা না থামতেই বগুড়ার এমপি রেজাউল করিম বাবলুর ফেসবুকে এবার নগ্ন ছবিরও দেখা মিলেছে। কে বা কারা পাসওয়ার্ড চুরি করে ফেসবুক টাইমলাইনে ওই নগ্ন ছবি পোস্ট করেছেন, এমন অভিযোগ করে এমপি বাবলু নিজে ঢাকার তেজগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন মিয়া জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তবে রোববার (১১ অক্টোবর) দুপুরে এমপি রেজাউল করিম বাবলুর ফেসবুক টাইমলাইনে খোঁজ করে সেই নগ্ন ছবি পাওয়া যায়নি। এদিকে গতকাল শনিবার রাতে লন্ডনভিত্তিক অনলাইন একটি টেলিভিশনের সঙ্গে এক আলোচনায় ফেসবুকে অস্ত্রের ছবি যিনি পোস্ট করেছেন, তার বিরুদ্ধে মামলা করার কথা জানিয়েছেন এমপি বাবলু।

এর আগে বগুড়া-৭ আসনের আলোচিত এমপির হাতে পিস্তলসহ ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর ‘ভাইরাল’ হয়ে যায়। গত শুক্রবার থেকে পিস্তলসহ এমপির ছবি নিয়ে আলোচনার মধ্যেই গতকাল তার টাইমলাইনে মিলেছে অশ্নীল ছবির সন্ধান।

কীভাবে অস্ত্রের পর নগ্ন ছবি নিজের ফেসবুকে গেল, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রেজাউল করিম বাবলু জানান, হয়তো কেউ আমার ফেসবুকের পাসওয়ার্ড জেনে গেছে। এরপর ওই ব্যক্তি ফেসবুকের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে প্রথমে অস্ত্রের ছবি ও পরে নগ্ন একটি ছবি দিয়েছে। পরে আমি ওই নগ্ন ছবি ডিলিট করে দিয়েছি। তবে আমার ফেসবুক আইডি হ্যাকড হয়নি। একজন সংসদ সদস্যের মানহানি করতে ষড়যন্ত্রমূলক এ ধরনের হীন কাজ করায় দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে তেজগাঁও থানার ওসি মো. সালাউদ্দিন মিয়া জানান, এমপি একটি জিডি করেছেন। কে বা কারা এ ঘটনায় জড়িত, আমরা খুঁজে দেখব বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৭ আসন থেকে ট্রাক প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে বিপুল ভোটে এমপি নির্বাচিত হন রেজাউল করিম বাবলু। ইতিমধ্যেই তিনি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ কয়েকবার সমালোচিত হয়েছেন। নির্বাচনী হলফনামায় তথ্য গোপন করে কৌশলে বিএনপির সমর্থন নিয়ে গণমাধ্যমে তা প্রচার করে রাতারাতি এমপি হয়ে যান বাবলু। এরপর অল্পদিনেই গাড়ি-বাড়িসহ বিপুল সম্পদের মালিক হয়েছেন তিনি। এর পেছনে টিআর, কাবিখা, কাবিটা, নিয়োগ সুপারিশপত্রসহ (ডিও লেটার) সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অনুকুলে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।