নিজস্ব প্রতিবেদক: লালপুর উপজেলার গোপালপুরে অবস্থিত আজিমনগর রেল স্টেশনে দীর্ঘ ছয় মাস স্টেশনে টিকিট ক্রয় করা অপেক্ষামান যাত্রীদের উঠাতে সেই ট্রেনটি ওই ১ কিলোমিটার পথ পেছনে আসে। স্টেশনটিতে মাস্টার নেই। ফলে ট্রেন ব্যবস্থাপনাও ভেঙে পড়েছে।

জানা গেছে গত বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) রাজশাহী থেকে ছেড়ে আসা খুলনাগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি ৩টা ২০ মিনিটে আজিনগর স্টেশনে থামার কথা থাকলেও ট্রেনটি না থেমে স্টেশন পার হয়ে চলে যায়। পরে যাত্রীরা ট্রেনের শিকল টানলে ১ কিলোমিটার সামনে গিয়ে ট্রেনটি থামে। কিন্তু টিকিট ক্রয় করা অপেক্ষামান যাত্রীদের উঠাতে সেই ট্রেনটি ওই ১ কিলোমিটার পথ পেছনে আসে।

এব্যাপারে যশোরগামী ট্রেনের যাত্রী সপ্তকা বিশ্বাস জানান, দুই মেয়েকে নিয়ে বাবার বাড়ি যাওয়ার জন্য টিকিট নিয়ে স্টেশনে ট্রেনের অপেক্ষায় ছিলাম কিন্তু ট্রেনটি স্টেশনে না দাঁড়িয়ে যথারীতি গতিবেগে চলে যায়। তবে দূরে ট্রেনটি থামতে দেখা যায় এবং পেছনে ফিরে আসে।

ট্রেনের যাত্রী গোপালপুরের আসলাম সেখ জানান, শিকল টেনে ট্রেনটি থামাতে হয়েছে। সজোরে ট্রেন থামায় গেটে দাঁড়ানো অনেক যাত্রী আছড়ে পড়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। এতে নারী ও শিশু সহ কমপক্ষে ২০ যাত্রী আহত হয়। এ ঘটনায় আহত কিছু যাত্রী মুঠোফোনে রাজশাহী রেল দফতরে অভিযোগ করেছে।

আজিমনগর স্টেশনের দায়িত্বপ্রাপ্ত টিকিট বিক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তিনি নিজের পরিচয় না দিয়ে বলেন, এখানে স্টেশন মাস্টার নেই এ ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না।