নিউজ ডেস্ক: প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা অভিযোগ করে বলেছেন, এরশাদের মৃত্যুর আগেও ষড়যন্ত্র হয়েছে। আমি তবুও ভালো ছিলাম। মৃত্যুর পরও আমাদের একমাত্র পুত্র এরিক ও তার সম্পদ লুটপাট করার জন্য ষড়যন্ত্র অব্যাহত। হুমকি-ধমকিও চলছে।

সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুরের পল্লীনিবাসে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কবর জিয়ারতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ মন্তব্য করেন তিনি। এ সময় তার পুত্র শাহাতা জারাব এরিক এরশাদ সঙ্গে ছিলেন।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় জোটের (বিএনএ) সভাপতি সেকেন্দার আলী মনি, মুখপাত্র শেখ মোস্তাফিজার রহমান, মহাসচিব মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, সমন্বয়কারী মো. আক্তার হোসেন এবং হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ট্রাস্টের পরিচালক ও এরিক এরশাদের লিগ্যাল অ্যাডভাইজার অ্যাডভোকেট কাজী রুবায়েত হাসান। পরে তিনি এরিককে নিয়ে এরশাদের কবর জিয়ারত ও মোনাজাতে অংশ নেন। কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে ‘১৪ বছর পর’ ছেলেকে নিয়ে রংপুরে আসেন বিদিশা। সকালে ঢাকা থেকে বিমানে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে পৌঁছান। সেখান থেকে সিলভার রঙের একটি কারে পল্লী নিবাসে এসে নামেন তারা।

এদিকে হঠাৎ তাঁদের আগমনে রংপুরে জাতীয় পার্টির তৃণমূল নেতা-কর্মীদের কৌতূহল সৃষ্টি হয়। তবে এ ব্যাপারে জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির নেতারা তেমন কিছু বলতে চাননি।

পরে সাংবাদিকদের কাছে এরিক এরশাদ বলেন, আমি আমার মাকে নিয়ে রংপুরে এসেছি বাবার কবর জিয়ারত করার জন্য। আমার অনেক আগেই আসার কথা ছিল, কিন্তু নানা কারণে আসতে পারিনি। আমার মাকে আব্বা অনেক ভালোবাসতেন। তাই বাবার কবর দেখাতে মাকে নিয়ে এসেছি।

একটি গ্রুপের ভুল বোঝানোর কারণে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও বিদিশা সিদ্দিকের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়েছিল মন্তব্য করে এরশাদের সাবেক স্ত্রী বিদিশা বলেন, সুখের সংসার ছিল আমাদের এই সন্তানকে নিয়ে। কিন্তু সেটি সহ্য হয়নি অনেকের। কারণ এটি রাজনৈতিক পরিবার ছিল।

প্রাসাদ রাজনীতির শিকার দাবি করে সাবেক স্ত্রী বিদিশা আরো বলেন, সব সময় এরশাদ সাহেবকে একটি গ্রুপ ভুল বোঝানো ও আমাদের মধ্যে দূরত্ব তৈরিতে ব্যস্ত ছিল। তাদের জন্য আমরা সংসার করতে পারিনি। আজও সেই গ্রুপটি সক্রিয় আছে। তারা এরিকের ভালো চায় না।

রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার কথা জানিয়ে বিদিশা বলেন, যারা একসময় এরিকের মাধ্যমে নমিনেশন নিয়েছেন, মন্ত্রী-এমপি হয়েছেন, তারা এখন তার কোনো খোঁজ রাখেন না। এরশাদের মৃত্যুর আগেও আমাদের নিয়ে ষড়যন্ত্র হয়েছে। এখনও হচ্ছে। জিডি, হামলা, মামলা, হুমকি-ধামকি সবকিছু আমাকে সহ্য করতে হচ্ছে।

এরিকের সম্পত্তি বেদখলের প্রসঙ্গ টেনে এরশাদের সাবেক স্ত্রী আরো বলেন, এরিকের ট্রাস্টে কত সম্পদ আছে তা সবাই জানে। কিন্তু এরিকের কোনো কিছুই এখন এরিকের কাছে নেই, সব দখল হয়ে গেছে।

তিনি আরো বলেন, আমি এরশাদের সম্পদের লোভে রংপুর আসিনি। তার কবর জিয়ারতের মাধ্যমে দোয়া নিয়ে আমি রাজনীতির মাঠে সক্রিয় হতে চাই। এরিক ও তার সম্পদ রংপুরবাসীর হাতে তুলে দিলাম। আপনারা দেখে রাখবেন।