নিউজ ডেস্ক: বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ মিথানল দিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির অপরাধে এসিআই কোম্পানিকে এক কোটি টাকা জরিমানা করেছেন র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। সেই সঙ্গে বাজারে থাকা হ্যান্ড স্যানিটাইজারগুলো ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সরিয়ে নিয়ে ধ্বংস করে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রোববার (১১ অক্টোবর) রাতে গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। তিনি বলেন, মিথানল দিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বানানোর কারণে এসিআইকে এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে মিথানল দিয়ে বানানো তিনটি ব্যাচের হ্যান্ড স্যানিটাইজার মার্কেট থেকে প্রত্যাহার করতে আদেশ দেওয়া হয়েছে।

এর আগে, গত ৪ অক্টোবর দুপুর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত গাজীপুরে প্রতিষ্ঠানটির কারখানায় অভিযান চালানো হয়। পরে কারখানাটি সিলগালা করে রাখে র‌্যাব। পরীক্ষা করে বিষাক্ত মিথানল পাওয়া যাওয়ায় রোববার রাতে এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, এসিআই কোম্পানির ‘স্যাভলন হ্যান্ড স্যানিটাইজার’ বিভিন্ন পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করে তাতে বিষাক্ত মিথানলের উপস্থিতি পাওয়া যায়, যা হ্যান্ড স্যানিটাইজারে থাকার কথা না। এছাড়া স্যাভলনের স্যানিটাইজারের গায়ে ‘আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল’ দিয়ে তৈরি লেখা থাকলেও তাতে আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহলের কোনও উপাদান পাওয়া যায়নি। বিশেষ করে জীবাণুনাশক হিসেবে মানুষ যে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করে, তাতে জীবাণুমুক্ত হওয়া দূরের কথা, এতে মানুষের শরীরে নানাবিধ ক্ষতি হয়। আর দেশে মিথানল ব্যবহারও সরকারিভাবে নিষিদ্ধ। কিন্তু এসিআইয়ের কারখানায় বিষাক্ত মিথানল দিয়ে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি হচ্ছিল, এমন খবরেই র‌্যাব সেখানে অভিযান চালিয়েছিল।

সারোয়ার আলম সাংবাদিকদের জানান, সম্প্রতি এসিআইয়ের গাজীপুরের কারখানায় অভিযান চালিয়ে তাঁরা নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সন্ধান পান। ওই সময় সেখানকার কারখানা সিলগালা করে দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে জরিমানা করা হয় ১৭ লাখ টাকা। সে সময় তাদের এ ধরনের প্রতারণা থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা সে নির্দেশনা মানেনি।