নিউজ ডেস্ক: এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য প্রফেসর ডা. মনসুর রহমান। বিষয়টি নিশ্চিত করে এমপি মনসুর রহমানের ব্যক্তিগত সহকারী শফিকুল ইসলাম।

শনিবার (২২ আগস্ট) রাজশাহী মেডিকেল কলেজের (রামেক) ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় তার করোনা শনাক্ত হয়। এক সাথে করোনা শনাক্ত হয়েছে ডা. মনসুর রহমানের দেখাশোনায় নিয়োজিত জহুরুল ইসলাম। জহুরুল ইসলামের জেলার দুর্গাপুরের আড়াইল এলাকায়।

ডা. মনসুর রহমানের ব্যক্তিগত সহকারী শফিকুল ইসলাম জানান, শনিবার বিকাল ৪টায় তিনি নমুনা দেন। রাতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক আজিজুল হক আজাদ জানিয়েছেন উনি করোনা পজিটিভ হয়েছেন। সেই সাথে তাকে ওষুধপত্র লিখে দিয়েছেন।

তিনি আরো জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে তার জ্বর ও শরীর ব্যথা ছিল। করোনা পজিটিভ হলেও শারীরিকভাবে ভালো আছেন তিনি। বর্তমানে নগরীর কাজীহাটাস্থ বাসায় রয়েছেন এবং সুস্থ আছেন তিনি। তার কোনও উপসর্গ দেখা দেয়নি। এর আগেও সংসদে যাওয়ার আগে তিনবার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল তার। তখন তার রিপোর্ট নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছিল। তার শরীরে এখনও করোনার তেমন উপসর্গ নেই। এছাড়া জহুরুল ইসলামও ভালো আছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে, রামেকের ভাইরোলজি বিভাগের প্রধান ডা. সাবেরা গুলনাহার জানিয়েছেন, তাদের ল্যাবে এ দিন মোট ১৮১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ৪৭ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট হয়েছে। এই ৪৭ জনের মধ্যে ২৭ জনের বাড়ি রাজশাহী। আর বাকি ২০ জনের মধ্যে আটজনের বাড়ি নাটোর এবং ১২ জনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

অন্যদিকে হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের আলাদা ল্যাবে শনিবার আরও ২২ জনের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ দিন তাদের ল্যাবে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এতে ২২ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে ১২ জনই রামেক হাসপাতালের রোগী ও কর্মী। বাকি ১০ জনের মধ্যে দুজন র‌্যাব সদস্য, চারজন পুলিশ সদস্য, একজন খ্রিস্টিয়ান মিশন হাসপাতালের রোগী এবং নগরীর বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা তিনজন।