নিউজ ডেস্ক: দেশে করোনাভাইরাসে একদিনে (গত ২৪ ঘণ্টায়) আরো ৪৮ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ নিয়ে প্রাণহানি হয়েছে ৩ হাজার ৮৩ জন করোনা রোগীর। এছাড়া একদিনে (গত ২৪ ঘণ্টায়) নতুন করে আরো আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৯৫ জন। দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৩৪ হাজার ৮৭৯ জন।

বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ হাজার ৯৩৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৬৯৫ জনের দেহে কোভিড-১৯ সংক্রমণ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৩৪ হাজার ৮৮৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় এ পর্যন্ত ৩ হাজার ৮৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। যারা ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন, তাদের মধ্যে পুরুষ ৩৬ জন আর নারী ১২ জন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৩১ শতাংশ।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, ২৪ ঘণ্টায় যারা মৃত্যুবরণ করেছেন, তাদের মধ্যে ৩১ থেকে ৪০ বছরের একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের চারজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ১৪ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের ১২ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের ১১ জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের পাঁচজন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন ছিলেন।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪৮ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১২ জন, রাজশাহী বিভাগে তিনজন, খুলনা বিভাগে পাঁচজন, সিলেট বিভাগে পাঁচজন এবং বরিশাল, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে দুইজন করে। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৪১ জন, বাসায় মারা গেছেন সাতজন।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, এ পর্যন্ত ঢাকা বিভাগে এক হাজার ৪৭৫ জন মারা গেছেন, যার হার ৪৭ দশমিক ৮৪ শতাংশ; চট্টগ্রামে ৭৫১ জন, হার ২৪ দশমিক ৩৬ শতাংশ; রাজশাহীতে ১৮২ জন, হার ৫ দশমিক ৯০ শতাংশ; খুলনায় ২১৯ জন, হার ৭ দশমিক ১০ শতাংশ; বরিশালে ১০২ জন, হার ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ; সিলেটে ১৫১ জন, হার ৪ দশমিক ৯০ শতাংশ; রংপুরে ১৭৭ জন, হার ৩ দশমিক ৮০ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৬৭ জন মারা গেছেন, যার হার ২ দশমিক ১৭ শতাংশ।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ সংক্রমণ থেকে মুক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৬৮ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১ লাখ ৩২ হাজার ৯৬০ জন। আর ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৮৩ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত শনাক্তের হার ২০ দশমিক ১৮ শতাংশ। আর রোগী শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৬ দশমিক ৬১ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৬৩৫ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৭৩৬ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৪৯ হাজার ৯৫১ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৮ হাজার ৫৬৮ জন।