নিউজ ডেস্ক: কুষ্টিয়ার মিরপুরে মাদ্রাসার অফিস কক্ষে অষ্টম শ্রেণির এক আবাসিক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা সুপার আব্দুল কাদেরকে (৪২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম

সোমবার (৫ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৯টায় পোড়াদহ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করেছে মিরপুর থানা পুলিশ। এর আগে বিকেলে মিরপুর থানায় মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর বাবা।

অভিযুক্ত আব্দুল কাদের মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের স্বরুপদহ চকপাড়া এলাকার সিরাজুল উলুম মরিয়ম নেসা মাদ্রাসার সুপার (প্রধান শিক্ষক) ও একই এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী মেয়েটি ওই মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্রী। সপ্তাহের ৬ দিন সে ওই মাদ্রাসায় থাকত। প্রতি শুক্রবার সকালে তার বাবা তাকে বাড়ি নিয়ে যেতেন, আবার শনিবার সকালে পৌঁছে দিতেন মাদ্রাসায়। গত শনিবার সকালে মেয়েটির বাবা তাকে মাদ্রাসায় পৌঁছে দেন। রোববার ভোরে ফজরের নামাজের সময় মাওলানা আবদুল কাদের মেয়েটিকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন।

পরে রাত ৮টার দিকে আবারো কক্ষে ডেকে নিয়ে তাকে দ্বিতীয় দফা ধর্ষণ করেন। এ সময় সুপার বিষয়টি কাউকে না জানাতে মেয়েটিকে শাসিয়ে দেন। তবে মেয়েটি গতকাল সোমবার সকালে তার এক সহপাঠীকে বিষয়টি জানায়। সহপাঠী ঘটনাটি তার বাবাকে জানালে তা এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে বিক্ষুব্ধ জনতা মাদ্রাসায় হামলা চালায় ও ভাঙচুর করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম জানান, মাদ্রাসার অফিস কক্ষে অষ্টম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় হওয়া মামলায় একমাত্র আসামিকে রাত সাড়ে ৯টার সময় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়েছে।