নিউজ ডেস্ক: নাটোরের গুরুদাসপুরে ফসলি জমি বর্গা দেওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নারীসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে জখম প্রতিপক্ষ। সোমবার (২৯ জুন) সকালে দিকে উপজেলার খাকড়াদহ ফকিরপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় আহত আব্দুল হান্নান ফকির বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ রাশিদুল, শহিদুল, আসালতসহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে গুরুদাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম।

জানা গেছে, সোমবার সকালে জমি বর্গা রাখার জন্য আব্দুল জলিল বাড়ির পাশের আনারুলের কাছে যান। এসময় প্রতিপক্ষ রাশিদুল সেখানে গিয়ে উচ্চবাচ্য শুরু করেন। একপর্যায়ে আব্দুল জলিলকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন।

খবর পেয়ে আব্দুল জলিলের ভাতিজা সোহেল রানা এগিয়ে এলে তাকে কুপিয়ে জখম করা হয়। এসময় সোহেলের চাচাতো বোন বৃষ্টি, স্মৃতি, পারভিন ও মনিরাকে কুপিয়ে গুরুত্বর যখম করা হয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

বৃষ্টি ও স্মৃতি জানায়, বাড়ির পাশে হট্টগোল হচ্ছিল। তারা বাড়ি থেকে বের হয়ে দেখেন চাচা আব্দুল জলিল ও ভাই সোহেল রানাকে মারধর করা হচ্ছে। এসময় তারা এগিয়ে গেলে তাদেরও এলোপাথারিভাবে কুপিয়ে যখম করা হয়।

অভিযুক্তরা পলাতক থাকায় তাদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে অভিযুক্ত রাশিদুলের মা জানান, জমি বর্গা দেওয়া নিয়ে রাশিদুলের সাথে আব্দুল জলিলের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তার ছেলে রাশিদুলের গলা চেপে ধরেন জলিল।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম জানান, মারামারি সংক্রান্ত বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।