নিজস্ব প্রতিবেদক: গুরুদাসপুরে সেতু মোল্লা নামের এক ব্যক্তির দুই লাখ টাকা যৌতুকের দাবি মেটাতে না পারায় স্ত্রী সাবিনা ও সৌদি প্রবাসী শাশুড়ি মর্জিনা বেগমকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (১ মার্চ) সকালে উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়নের চর-বিলসা গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। সেতু মোল্লা চর-বিলসা গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে। সেতু মোল্লা ও সাবিনা স্বামী-স্ত্রী ছাড়াও তারা আপন চাচাতো ভাই-বোন।

অভিযোগে জানা যায়, প্রায় আড়াই বছর আগে বিয়ে হয় আপন চাচাতো ভাই সেতু মোল্লার সাথে। বিয়ের সময় যৌতুক দেয়া হয় এক লাখ টাকা। বিয়ের পর শাশুড়ি মর্জিনা বেগম সৌদি আরবে চাকরি নিয়ে চলে যান। কিন্তু গত দেড় মাস আগে মর্জিনা বেগম দেশে চলে আসেন। এরপর থেকে আরো দুই লাখ টাকার জন্য স্ত্রী সাবিনার ওপর চাপ দেয় স্বামী সেতু মোল্লা। একপর্যায়ে শুক্রবার সকালে সেতু তার বাবা সাইফুল ইসলামকে নিয়ে তার শাশুড়ির কাছে দুই লাখ টাকা দাবি করে। এসময় টাকা দিতে অস্বীকার করলে প্রথমে স্ত্রী সাবিনাকে মারধর শুরু করে। শাশুড়ি এগিয়ে গেলে তাকেও মারধর করে জখম করে সেতু মোল্লা। এসময় তাদের চিৎকারে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে সাবিনা ও মর্জিনাকে উদ্ধার করে গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তারা বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জামাই সেতু মোল্লা জানান, বিয়ের সময় এক লাখ টাকা দেওয়ার কথা বলে দুই লাখ টাকার কাবিন করা হয়েছে। সেই এক লাখ টাকা আজও দেয়নি। টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে গণ্ডগোল হয়েছে।

গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।