নিজস্ব প্রতিবেদক: গুরুদাসপুরে এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালে শেখ গোলাম মোস্তফা ও পারভেজ মোশারফ নামে ২ ভুয়া পরীক্ষার্থীকে আটক করে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মিজানুর রহমান উভয়কে এক বছর করে কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত শেখ গোলাম মোস্তফা নাটোর শহরের বলারীপাড়া মহল্লার মশিউর রহমানের ছেলে ও রাজশাহী সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় বর্ষের ছাত্র এবং পারভেজ মোশারফ সদর উপজেলার একডালা গ্রামের মনোয়ার হোসেনের ছেলে ও রাজশাহী পলিটেকনিক ইন্সিস্টিটিউটের ইলেকট্রিক্যাল বিভাগের ৬ষ্ঠ সেমিস্টারের ছাত্র।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মিজানুর রহমান জানান, সোমবার এইচএসসি’র ইংরেজী ২য় পত্রের পরীক্ষা চলাকালে গুরুদাসপুর উপজেলার রোজী মোজাম্মেল মহিলা কলেজ কেন্দ্রে কক্ষ পরিদর্শক লাভলু প্রামানিক পরীক্ষার্থী শেখ গোলাম মোস্তফা ও পারভেজ মোশারফের সন্দেহজনক আচরণ লক্ষ্য করেন। এসময় তিনি তাদের প্রবেশ পত্র দেখতে চাইলে তারা দেখাতে ব্যর্থ হয়। এক পর্যায়ে জিজ্ঞাসাবাদে গুরুদাসপুরের শামসুজ্জোহা ডিগ্রী কলেজের অনিয়মিত পরীক্ষার্থী জিল্লুর রহমান ও হারুনুর রশীদের পরিবর্তে পরীক্ষা দিচ্ছিলেন বলে স্বীকার করেন তারা। পরে তাদের আটক করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মিজানুর রহমানের সামনে হাজির করা হয়। এসময় বিচারক উভয়কে এক বছর করে কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।