নিউজ ডেস্ক: নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলাল শেখকে বহিষ্কার করেছে জেলা যুবলীগ। গঠনতন্ত্রের ২২ এর (ক) ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাইনুল হোসেন খান নিখিলের নির্দেশে তাকে আওয়ামী যুবলীগ গুরুদাসপুর উপজেলা শাখা থেকে বহিষ্কার করা হয়।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লব স্বাক্ষরিত এক পত্রে এই বহিষ্কারাদেশের কথা জানানো হয়। এর আগে বিদ্রোহী প্রার্থী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম বিপ্লবকে আওয়ামী লীগের সকল প্রকার পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়।

পত্রে আরো জানানো হয়, ঐতিহ্যবাহী যুবলীগ একটি সুশৃংখল যুব সংগঠন। উপজেলা যুবলীগের সভাপতির পদে থেকে আলাল শেখ আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. শাহনেওয়াজ আলীর (নৌকা) পক্ষে নির্বাচন না করে দলের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী আরিফুল ইসলামের (নারকেলগাছ) পক্ষে কাজ করছেন। এমনকি ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর সমর্থনকারী ছিলেন আলাল শেখ। অথচ গুরুদাসপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি হিসেবে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা তাঁর নৈতিক ও সাংগঠনিক দায়িত্ব। সংগঠন পরিপন্থীভাবে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করা ও সমর্থন দেওয়ায় সংগঠনের শৃঙ্খলা লঙ্ঘিত ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে, যা সংগঠনের গঠনতন্ত্র পরিপন্থী। এই অবস্থায় গঠনতন্ত্রের ২২(ক) ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল হোসেন খানের নির্দেশে আলাল শেখকে উপজেলা যুবলীগের সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হলো।

এদিকে গুরুদাসপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আলাল শেখ বলেন, বহিষ্কারাদেশের চিঠিটি এখনো হাতে পাননি। তবে সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি কারণ দর্শানোর নোটিশ হাতে পেয়েছিলেন ৬ জানুয়ারি। তার দুই দিন পর নোটিশের জবাবও দিয়েছিলেন। তবে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দের আগ পর্যন্ত বিদ্রোহী প্রার্থী আরিফুল ইসলামের পক্ষে কাজ করলেও এখন করছেন না বলে দাবি করেন তিনি। উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দাপ্তরিক কাজে ব্যস্ত থাকায় দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ গ্রহণ করা হয়ে ওঠেনি বলেও জানান তিনি।