নিউজ ডেস্ক: ব্যবসায়ী ও ইজারাদারদের যে কোন অভিযোগ জানাতে অনুরোধ করে নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেছেন, পশু পরিবহনের ক্ষেত্রে সকল প্রকার চাঁদাবাজি কঠোর হস্তে দমন করা হবে। এই ক্ষেত্রে যদি কোন পুলিশের সদস্য জড়িত থাকে তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শনিবার (৪) দুপুরে ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে বড়াইগ্রামের কালিকাপুর স্কুল মাঠে হাট ইজারাদার ও ব্যবসায়ীদের সাথে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আসাদুজ্জামান, বনপাড়া পৌর মেয়র কেএম জাকির হোসেন, শ্রমিক লীগ নেতা মোস্তারুল আলম প্রমুখ।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, কোন প্রকার চাঁদাবাজি সহ্য করা হবে না। পশুরহাটে পশু বেচা কেনাসহ সকল ইজারাদারদের করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাট বসোনোর ব্যবস্থা করতে হবে। কোথাও অতিরিক্ত টোল আদায় করা যাবে না।

পশু এক জেলা থেকে অন্য জেলায় আনা-নেয়া করার ব্যাপারে পুলিশ সহযোগিতা করবে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে পশুর হাটগুলোতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। সেই সঙ্গে পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে।