বিনোদন ডেস্ক: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লড়াই করবেন কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন, কনকচাঁপা, মনির খান ও চিত্রনায়িকা শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা, চিত্রনায়ক আকবর হোসেন পাঠান (ফারুক), কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম, চিত্র নায়ক মাসুদ পারভেজ ওরফে সোহেল রানা, আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম। এরই মধ্যে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন তারা।

নীলফামারী-৪ (সৈয়দপুর-কিশোরগঞ্জ) আসন থেকে ধানের শীষের প্রতিনিধিত্ব করবেন বেবী নাজনীন। আর সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে ধানের শীষের প্রতিনিধিত্ব করবেন কনকচাঁপা। এছাড়া ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর) আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়েছেন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী মনির খান। ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা, সদরপুর ও চরভদ্রসন) মনোনয়নের চিঠি সংগ্রহ করেছেন চিত্রনায়িকা শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা।

বেবী নাজনীন বলেন, ‘আমি নীলফামারী-৪ আসনের এলাকার মানুষের জন্য আগে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। মনোনয়ন পেয়েছি। জয়ীও হবো ইনশাআল্লাহ। আমার জন্মস্থান সৈয়দপুরে, আমি এলাকার মানুষের পাশে থাকতে এই নির্বাচনে অংশ নেব।’

কণ্ঠশিল্পী কনকচাঁপা বলেন, ‘মনোনয়নপত্র কেনার পর থেকে এলাকার মানুষ আমাকে শুভেচ্ছা পেয়েছি। আমি সিরাজগঞ্জ-১ আসনের উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই। আমার প্ল্যাটফর্ম হিসেবে বিএনপিকেই চেয়েছি এবং পেয়েছি। মনোনয়ন পেলাম এবার বিজয়ের পালা।’

এদিকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন চিত্রনায়ক আকবর হোসেন পাঠান (ফারুক)। এছাড়া চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম। ফারুককে ঢাকা-১৭ আসন থেকে তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আর মমতাজকে মানিকগঞ্জ-২ (সিংগাইর, মানিকগঞ্জ সদরের একাংশ ও হরিরামপুর) আসন থেকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

নায়ক ফারুক স্কুলজীবন থেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত। ১৯৬৬ সালে ছয়দফা আন্দোলনে যোগ দেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। মানিকগঞ্জ-২ (সিংগাইর, মানিকগঞ্জ সদরের একাংশ ও হরিরামপুর) আসন থেকে তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্নেহভাজন ছিলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাকে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য অনুপ্রাণিত করেছিলেন।

অপরদিকে মানিকগঞ্জ-২ (সিংগাইর, মানিকগঞ্জ সদরের একাংশ ও হরিরামপুর) আসনের বর্তমান এমপি সিংগাইর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মমতাজ বেগম। ২০০৮ সালে প্রথমে সংরক্ষিত আসনে, দ্বিতীয়বার ২০১৪ সালের নির্বাচনে তিনি এমপি হন।

এছাড়া এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পাটি থেকে বরিশাল-২ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন চিত্র নায়ক মাসুদ পারভেজ ওরফে সোহেল রানা। তিনি জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য। বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ওরা ১১ জন ছবির প্রযোজক হিসেবে চলচ্চিত্র জগতে প্রবেশ করেন তিনি। ১৯৭৩ সালে কাজী আনোয়ার হোসেনের বিখ্যাত কাল্পনিক চরিত্র মাসুদ রানা একটি গল্প অবলম্বনে মাসুদ রানা ছবির নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। একই ছবির মাধ্যমে তিনি মাসুদ পারভেজ নামে পরিচালক হিসেবেও যাত্রা শুরু করেন।

অন্যদিকে এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পাটির ‘লাঙল’ মার্কার মনোনয়ন না পেয়ে বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন সিডি ব্যবসায়ী থেকে তারকা বনে যাওয়া বগুড়ার আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম।