নিউজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শুক্রবার (২ অক্টোবর) এক টুইট বার্তায় নিজেই এ তথ্য জানিয়েছেন ট্রাম্প। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের খুব কাছের উপদেষ্টাদের একজন হোপ হিকসের করোনাভাইরাস রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর থেকে মেলানিয়া ট্রাম্প ও তিনি কোয়ারেন্টাইনে আছেন।

মার্কিন নির্বাচনকে সামনে রেখে গত মঙ্গলবার এক টিভি বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন ট্রাম্প। সেখানে তার সঙ্গে এয়ার ফোর্স ওয়ানে করে ওহাইওতে গিয়েছিলেন হোপ হিকস।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে তিনটি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হবে। এদিন (মঙ্গলবার) ওহাইও অঙ্গরাজ্যের ক্লিভল্যান্ডে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্র্যাট দলের প্রার্থী প্রার্থী জো বাইডেনের মধ্যে প্রথম বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়।

ট্রাম্পের উপদেষ্টা হোপ হিকসকে এদিন মাস্ক পরা ছাড়ায় ক্লিভল্যান্ডে প্রেসিডেন্টের এয়ার ফোর্স ওয়ান থেকে নামতে দেখা গেছে। সেসময় তোলা একটি ছবিতে বিষয়টি চোখে পড়ে। এছাড়া গত বুধবার মিনেসোটায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে একটি সমাবেশেও অংশ নেন হোপ হিকস।

টুইট বার্তায় ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‌‘আজ রাতে মেলেনিয়া ট্রাম্প ও আমার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। আমরা দ্রুত কোয়ারেন্টাইন ও সুস্থতার প্রক্রিয়া শুরু করবো।’

এর আগের একটি টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেছিলেন, ‌কোনো বিশ্রাম ছাড়াই কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন হোপ হিকস। নমুনা পরীক্ষায় তার কোভিড-১৯ পজিটিভ এসেছে। মেলানিয়া ট্রাম্প ও আমি করোনা পরীক্ষার রিপোর্টের আশায় আছি।

প্রসঙ্গত, হোয়াইট হাউসে আগেই ঢুকেছে করোনা, কিন্তু তারা কেউ হিকসের মতো দৈনিক ট্রাম্পের সংস্পর্শে আসতেন না। ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৭০ লক্ষ মার্কিনবাসী, মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ মানুষের। প্রায় সব সমীক্ষাই বলছে, নভেম্বরের নির্বাচনে হারের সম্ভাবনা প্রবল ডোনাল্ড ট্রাম্পের। তাঁর প্রতিপক্ষ জো বাইডেন বারবার বলেছেন যে ট্রাম্প করোনাকে নিয়ে হেলাফেলা করেছেন। মাস্ক পরেননি অনেক দিন, বড় বড় সভা করেছেন। এবার কিন্তু কোভিডের জেরে তাঁকে মানতেই হবে সব বিধিনিষেধ।

চলতি সপ্তাহে বেশ কয়েকবার ট্রাম্পের সঙ্গে যাতায়াত করেছেন হোপ হিকস। ২০১৬ সালের নির্বাচনে তিনি ট্রাম্পের মুখপাত্রের কাজ করেছিলেন। এরপর তিনি হোয়াইট হাউজে কম্যুনিকেশনস ডিরক্টেরের পদে নিযুক্ত হয়েছিলেন। এবারের ভোটের আগে ফের তিনি উপদেষ্টা রূপে ট্রাম্প টিমের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।