নিউজ ডেস্ক: বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগে চার জনকে আটক করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উলিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রুহুল আমিন।

এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে উলিপুর থানায় মামলা করলে শনিবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে পুলিশ কায়সার আলী, সোবাহান আলী, আবু বক্কর ও মোমিনুল ইসলামকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণ করে। আটক ব্যক্তিরা হলেন উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের বড়ুয়া তবকপুর গ্রামের বাসিন্দা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উলিপুর পৌরসভার বলদীপাড়া গ্রামের এক গৃহবধূর সাথে একই গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর পুত্র রবিউল ইসলামের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গৃহবধূকে ডেকে নেয় রবিউল। পরে তার সহযোগী আবু বক্করকে সাথে নিয়ে ব্যাটারিচালিত অটো রিকশাযোগে উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নের বড়ুয়া তবকপুর রাজারঘাট গ্রামের আবুল হোসেনের পুত্র মোমিনুলের বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর নির্জন বাড়িতে রবিউল ইসলামসহ আটক ৪ জন ভুক্তভোগী গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে উলিপুর থানায় মামলা করেন। পরে শনিবার দুপুরে কায়সার আলী, সোবাহান আলী, আবু বক্কর ও মোমিনুল ইসলামকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণ করে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উলিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রুহুল আমিন বলেন, কায়সার আলী, সোবাহান আলী, আবু বক্কর ও মোমিনুল ইসলামকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া মূল হোতা রবিউলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।