নিউজ ডেস্ক: রংপুরের মিঠাপুকুর-দিনাজপুরের ফুলবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে অজ্ঞাত এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা ও পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সকালে স্থানীয় লোকজন সড়কের পাশে জঙ্গলে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। বদরগঞ্জ উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের ঘুনুরঘাট এলাকায় পার্শ্ববর্তী পার্বতীপুর উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের পাঁচপুকুরিয়া থেকে লাশটি উদ্ধার করে মধ্যপাড়া পুলিশ ফাঁড়ি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ (মঙ্গলবার) সকালে প্রায় ২৫ বছর বয়সী ওই নারীর লাশ সড়কের পাশে জঙ্গলে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। তার মুখে অসংখ্য আঘাতের চিহৃ সাথে গলায় ওড়না পেচানো ছিল। এলাকাবাসী আফসার আলী বলেন, দুর্বৃত্তরা অন্য কথাও হত্যার পর লাশটি ওই স্থানে ফেলে পালিয়ে যেতে পারে।

এলাকাবাসী জানায়, ওই নারীর পরনে ছিল সালোয়ার-কামিজ। ডান হাত ও একটি পা ওড়না দিয়ে গলার সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় ছিল। দুস্কৃতকারীরা দাঁতগুলো ভেঙে দিয়েছে। এতে ধারণা করা যায়, কোনো ক্ষোভে হয়তো দুর্বৃত্তরা নির্দয়ভাবে হত্যার পর লাশ ফেলে গেছে।

হরিরামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান শাহ বলেন, লাশটি শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। ধারণা করা যাচ্ছে, দুরের কোথাও হত্যার পর গাড়িতে করে লাশটি ফেলে পালিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। মহিলাটির পরনে সালোয়ার কামিজ ছিল। এবং লাশটির ডান হাত ও একটি পা ওড়না দিয়ে গলার সঙ্গে বাঁধা ছিল।

পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, ঘটনাস্থলের পাশেই মধ্যপাড়া-রংপুর সড়ক। সম্ভবত বাইর থেকে এনে তরুণীর লাশ এখানে ফেলে রাখা হয়েছে। নিহত তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা মেডিকেল রিপোর্ট না পেলে বলা যাবে না। লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্ততি চলছে বলেও জানান তিনি।