নিউজ ডেস্ক: ভারতের উত্তর প্রদেশে দাড়ি রাখার কারণে বরখাস্ত করা হয়েছে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে। বরখাস্ত হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা বাগপত জেলার রামলা থানার সাব-ইনসপেক্টর ইন্তাসার আলি। তিনি গত ২৫ বছর ধরে উত্তরপ্রদেশ পুলিশে কাজ করছেন। কিন্তু এতদিন পর্যন্ত কেউ তাকে দাড়ি রাখতে বাধা দেয়নি।

গত বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) -বাগপত জেলায়। অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখার জন্য আলীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে বরখাস্ত করার কারণ হিসেবে বলা হয়, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ব্যতীত দাড়ি রাখার কারণে পুলিশের ড্রেসকোড লঙ্ঘন হওয়ার দায়ে তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন ও এই সময়

তবে বরখাস্ত হওয়া ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তার ২৫ বছরের চাকরি জীবনে তিনি এর আগেও দাড়ি রেখেছিলেন। তবে এর আগে তাকে দাড়ি রাখা নিয়ে কোন ঝামেলায় পরতে হয়নি এবং তার কাজেও কোন সমস্যা হয়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ ড্রেস কোডের নিয়ম ভাঙায় উত্তরপ্রদেশের বাগপত (Baghpat) জেলার রামলালা (Ramala) পুলিশ স্টেশনের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইন্তেসার আলিকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই দাড়ি (beard) রাখার জেরে তাঁর বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পুলিশ ড্রেস কোড অনুযায়ী, শিখ সম্প্রদায় ছাড়া অন্য কোনও সম্প্রদায়ের মানুষরা কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখতে পারবেন না।

বরখাস্ত হওয়া পুলিশ কর্মকর্তা জানান, তিনি এর আগে ২০১৯ সালের নভেম্বরে অনুমতি চেয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি দিয়েছিলেন। তবে কর্তৃপক্ষ এখনো সেই চিঠির কোনো জবাব দেয়নি।

এ প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার বাগপতের পুলিশ সুপার অভিষেক সিং গণমাধ্যমকে বলেন, বুধবার অনুমতি ছাড়া দাড়ি রাখার জন্য আলীকে বরখাস্ত করা হয়েছে। এই বিষয়ে বারবার সতর্ক করার হলেও তিনি ড্রেস কোড সংক্রান্ত আইন মানেননি। এর আগে এই বিষয়ে তাঁকে শোকজও করার হয়েছিল। তারপরও কোনও কর্ণপাত করেননি, তদন্তে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পরেই আলীকে বরখাস্ত করা হয়।