নিউজ ডেস্ক: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে হাছেন বাবু (৩২) নামে এক ভ্যান চালককে কুপিয়ে হত্যা করে ব্যাটারিচালিত ভ্যানটি নিয়ে পালিয়ে গেছে দুবৃর্ত্তরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হাছান মাহমুদ।

শুক্রবার (৯ অক্টোবর) বেলা ১১টায় উপজেলার বলিভদ্রপুর রাস্তার পাশের ধানক্ষেত থেকে ভ্যানচালক হাছেন বাবুর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। হাছেন বাবু উপজেলার বেতদিঘী ইউনিয়নের সৈয়দপুর দক্ষিপাড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে।

ভ্যানচালক হাছেন বাবুকে হত্যার ঘটনায় শোকের ছায়া পড়েছে হাছেন বাবুর গ্রাম সৈয়দপুরে। পরিবারের একমাত্র উপার্জন সক্ষম ব্যক্তি হাছেন বাবুর হত্যার ঘটনায় জ্ঞান হারাচ্ছেন হাছেন বাবুর বৃদ্ধ বাবা আব্দুর রশিদ (৬০)। হাছেন বাবুর বৃদ্ধ মা হাছনা বেগমের আহাজারীতে ভারী হয়ে উঠেছে সেখানের পরিবেশ।

হাছেন বাবুর বোন রশিদা বেগম বলেন, বৃহস্পতিবার বিকালে হাছেন বাবু ভ্যান নিয়ে বের হওয়ার পর আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরের দিন শুক্রবার সকালে তারা লোকমুখে খবর পেয়েছেন হাছেন বাবুকে কে বা কারা গলাকেটে হত্যা করেছে।

হাছেন বাবুর চাচা রফিকুল ইসলাম বলেন, তার বড় ভাই আব্দুর রশিদের দুই ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে হাছেন বাবু মেজো। হাছেন বাবুর বড় ভাই ইয়ানুর গত বছর সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। মেয়েটি স্বামীর ঘর ছেড়ে এখন বাবার বাড়িতে বসবাস করছে। সংসারের একমাত্র উপার্জন সক্ষম ব্যক্তি ছিল হাছেন বাবু।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ফুলবাড়ী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) হাছান মাহমুদ জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের কোন এক সময় দুর্বৃত্তরা ভ্যানচালক হাছেন বাবুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। প্রাথমিক তদন্তে নিহত হাছেন বাবুর শরীরে একাধিক ক্ষতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুল ইসলাম জানান, ওই ভ্যানচালকের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্যে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। দুর্বৃত্তদের ধরার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।