নিউজ ডেস্ক: গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরো ২৭ জজনের প্রাণহানি হয়েছে। এ নিয়ে দেশে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণহানি হলো ৩ হাজার ৩৩৩ জন। একই সময়ে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ২ হাজার ৮৫১ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে করে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে আড়াই লাখ।

শুক্রবার (৭ আগস্ট) দুপুরে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিনে এসব তথ্য তুলে ধরেন অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি আরো জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩ হাজার ২৫৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় আগের কিছু মিলিয়ে ১২ হাজার ৬৯৯টি নমুনা। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো ১২ লাখ ৩৭ হাজার ৮২৩টি।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, দেশে মোট ৮৩টি লাবে গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ হাজার ৬৯৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও ২ হাজার ৮৫১ জন। ফলে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২ লাখ ৫২ হাজার ৫০২ জনে। সেই সঙ্গে আরও ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট মৃত্যু হলো ৩ হাজার ৩৩৩ জনের।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের পুরুষ ২৪ জন এবং নারী তিনজন। ২৬ জন হাসপাতালে এবং একজন বাসায় মারা গেছেন। এদের মধ্যে চল্লিশোর্ধ্ব চারজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ছয়জন, ষাটোর্ধ্ব ১২ জন, সত্তরোর্ধ্ব চারজন এবং ৮০ বছরের বেশি বয়সী একজন ছিলেন।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, মৃতদের মধ্যে মধ্যে ঢাকা বিভাগের ছিলেন ১৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের তিনজন, রংপুর বিভাগের দুইজন, খুলনা বিভাগের পাঁচজন, রাজশাহী বিভাগের তিনজন এবং বরিশাল বিভাগের ছিলেন একজন। এ পর্যন্ত মৃতদের মধ্যে দুই হাজার ৬৩০ জন পুরুষ (৭৮ দশমিক ৯১ শতাংশ) এবং ৭০৩ জন নারী (২১ দশমিক ০৯ শতাংশ)।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ১ হাজার ৭৬০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। তাতে দেশে মোট ১ লাখ ৪৫ হাজার ৫৮৪ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন, যা মোট আক্রান্তের ৫৭ দশমিক ৬৬ শতাংশ।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৪৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৪০ শতাংশ। আর রোগী শনাক্ত তুলনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৬৬ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৮১৫ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৮৩৮ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৫৫ হাজার ১৭৫ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৩৬ হাজার ৫২৪ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৮ হাজার ৬৫১ জন।

এদিকে এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এক কোটি ৯২ লাখ ৭২ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মৃতের সংখ্যা সাত লাখ ১৭ হাজারের বেশি। তবে সুস্থ রোগীর সংখ্যা এক কোটি ২৩ লাখ ৭৩ হাজার প্রায়।