নিউজ ডেস্ক: দেশে দুই লাখ ছাড়াল করোনা শনাক্ত রোগী। এর মধ্যে দেশে একদিনে (গত ২৪ ঘণ্টায়) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৩৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ নিয়ে মোট প্রাণহানি হয়েছে দুই হাজার ৫৮১ জনের।

এছাড়া একই সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন দুই হাজার ৭০৯ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই লাখ দুই হাজার ৬৬ জনে। আর সুস্থ হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৩৭৩ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ১০ হাজার ৯৮ জন।

শনিবার (১৮ জুলাই) দুপুর আড়াইটায় করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান।

তিনি আরো জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ২৪ দশমিক ৮০ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৮৬ শতাংশ। মোট রোগী শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ২৮ শতাংশ।

তিনি আরো জানান, সারাদেশে ৮০টি ল্যাবের মধ্যে সরকারি ও সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৪৮টি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩২টি ল্যাব চালু আছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১০ হাজার ৬৩২টি। আগের নমুনাসহ মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১০ হাজার ৯২৩টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১০ লাখ ১৭ হাজার ৬৭৪টি।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩৪ জনের মধ্যে ২৯ জন পুরুষ ও নারী পাঁচ জন। এদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা বিভাগে ১৪ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে তিন জন, রাজশাহী বিভাগে পাঁচ জন, সিলেট বিভাগে চার জন, বরিশাল ও ময়মনসিংহ বিভাগে এক জন করে দুই জন, খুলনা বিভাগে ছয় জন। এদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৩২ জন, বাসায় মারা গেছেন দুই জন।

তিনি আরো জানান, মৃত্যুদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে এক জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে এক জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এক জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে এক জন রয়েছেন।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৭৭৯ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫৩১ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৪১ হাজার ৫৩৮ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৮ হাজার ৪৯৮ জন।

এর আগে শুক্রবারের (১৭ জুলাই) বুলেটিনে বলা হয়, করোনা আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৫১ জনের প্রাণহানি হয়েছে। ১৩ হাজার ৪৬০টি নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে আরো তিন হাজার ৩৪ জনের দেহে। সে হিসাবে আগের ২৪ ঘণ্টার তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্ত ও প্রাণহানি-উভয় সংখ্যাই কমেছে। দেশে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড আছে ৬৪ জনের। সে তথ্য জানানো হয়, ৩০ জুনের বুলেটিনে। সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড চার হাজার ১৯ জনের, ২ জুলাইয়ের বুলেটিনে তা জানানো হয়।

এদিকে বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন এক কোটি ৪২ লাখের বেশি। মৃতের সংখ্যা প্রায় ছয় লাখ। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন পৌনে ৮৫ লাখের বেশি রোগী।