নিউজ ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) সম্পর্কে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তিথি সরকারকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। তিথি সরকার প্রাণিবিদ্যা বিভাগের ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষের শ্রেণির শিক্ষার্থী।

আদেশে বলা হয়, আপনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) সম্পর্কে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় আপনাকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০০৫ এর ধারা ১১ (১০)-এর উপাচার্য মহোদয়ের ক্ষমতাবলে সিন্ডিকেটের অনুমোদন সাপেক্ষে আপনাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হলো। আপনাকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, তা লিখিতভাবে আগামি ১০ (দশ) দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রার দপ্তর বরাবর জানানোর জন্য আদিষ্ট হয়ে নির্দেশ প্রদান করা হলো।

এর আগে গত ২৪ অক্টোবর তিথি সরকারকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসংগঠন মিলে বিক্ষোভ মিছিল করে। এই দাবির ৭২ ঘণ্টার পূর্বেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তিথি সরকারকে সাময়িক বহিষ্কার করল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এদিকে এর আগে গতকাল এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সংগঠনের শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকায় তিথি সরকারকে ছাত্র অধিকার পরিষদ জবি শাখা দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্ব থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়া হয়। একই সঙ্গে তাকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না সে বিষয়ে আগামী ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়।

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ প্রমাণিত হলে তিথি সরকারকে সংগঠন থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক মুহম্মদ রাশেদ খাঁন।

তিথীর বিষয়ে তিনি বলেন, একটি সংগঠন বড় হলে সেখানে বিভিন্ন মাইন্ডের লোকজন থাকবে। এটা স্বাভাবিক। সবাইকে নিয়েই একটা সংগঠন। তবে একজন ব্যক্তি হিসাবে এখানে কেউ কারো ধর্ম পালনে বা ধর্মীয় অনুভূতি আঘাত দিয়ে কথা বলতে পারে না। এটা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

প্রসঙ্গত, অভিযুক্ত তিথী সরকার দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন পোস্ট ও কমেন্টের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মানুভূতিতে আঘাত করে মন্তব্য করে আসছিলেন। সেসব পোস্ট ও কমেন্টের স্ক্রিনশর্ট সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হলে সমালোচনার ঝড় উঠে।

এদিকে তিথি সরকারের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে কেউ দীর্ঘদিন যাবত ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করছে বলে তিথি সরকার পল্লবী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে। তিথি সরকার বিশ্ব হিন্দু সংগ্রাম পরিষদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক।