নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক যারা পেয়েছেন, তারা কেউ জামায়াত নন, সবাই বিএনপি।’

শুক্রবার (৩০ নভেম্বর) বিকেলে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন ও বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে গেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন। তারা সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়ন করছে।’

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে লক্ষ্য প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার চেতনা ‘গণতন্ত্র’ থাকবে কী না, স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষা করা যাবে কী না, তা নির্ভর করবে এ নির্বাচনী প্রক্রিয়া এবং নির্বাচনের ওপর। সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনী বাতিল ও পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে বাংলাদেশে একদিকে জনগণের সাংবিধানিক অধিকার হরণ করা হয়েছে, অন্যদিকে নিরপেক্ষ নির্বাচনের সম্ভবনার পথ রুদ্ধ করা হয়েছে। স্বৈরাচারী একদলীয় শাসন ব্যবস্থা পাকাপাকি করার পথ সুগম করা হয়েছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজ দায়িত্বশীল সব দল, ব্যক্তি, সংগঠন সকলেই এ বিষয়ে একমত যে, বর্তমান অবস্থায় অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব নয়। এটাই এখন এই মুহূর্তে জাতির সবচেয়ে বড় সংকট, সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। এই সংকট সমাধানের জন্য আমরা বার বার সংলাপের কথা বলেছি। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করেছি কিন্তু কোনও সমাধান পাইনি।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা আব্বাস ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বাধীনতা বিরোধী রাজনৈতিক সংগঠন জামায়াতের জন্য ২৫টি আসন ছেড়ে দিয়েছে বিএনপি। এ ২৫টি আসনে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধনহীন জামায়াত ভোট করবে ধানের শীষ প্রতীকে। বীরউত্তম জিয়াউর রহমানের দল বিএনপির ‘ধানের শীষ’ প্রতীক জামায়াতকে দেওয়ায় প্রশ্নের মুখে পড়েছে দলটির শীর্ষ নেতারা।