নিউজ ডেস্ক: নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে কমেলা বেগম নামে এক নারীকে পিটিয়ে জখম করেছেন বিপ্রবেলঘরিয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য বাবুল।

অন্যদিকে লিজ নেওয়া পুকুরে কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরা বাঁধা দেওয়ায় মাছ চাষী খায়রুল ইসলাম সালাম কে পেটানোর হুমকি দিয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাপস কুমার।

এ ঘটনায় মাছ চাষী সালাম সোমবার (১০ আগস্ট) সন্ধ্যায় নলডাঙ্গা থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন। এর আগে রোববার দুপুরে উপজেলার বাসুদেবপুরের বেলঘরিয়া শিবপুর ও সাধনগর গ্রামে পৃথকভাবে এই দুটি ঘটনা ঘটে।

তবে ইউপি সদস্য বাবুল নারী কমেলা বেগমকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। অন্যদিকে অভিযুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাপস কুমার দাবি করেছে নিজের জায়গায় কারেন্ট জাল পেতে ছিলেন, কিন্ত জালটি বাতাসে সালামের লিজ নেওয়া পুকুরে চলে গেলে এনিয়ে কথা কাটাকাটি হয় পেটানোর হুমকি দেওয়া হয়নি।

এলাকাবাসী ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রোববার দুপুরে বিপ্রবেলঘরিয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য বাবুলের লিজ নেওয়া পুকুরে বাসুদেবপুর বেলঘরিয়া শিবপুর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছোট মেয়ে মাছ ধরার জন্য বড়শি ফেলে। বড়শি দিয়ে মাছ মারা দেখে ইউপি সদস্য বাবুল ক্ষিপ্ত হয়ে আমজাদের স্ত্রী কমেলা বেগম (৫৬) ও তার ছেলে বাবুকে (৩০) লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন। পরে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয়রা হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তবে ইউপি সদস্য বাবুল লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার লিজ নেওয়া পুকুরে বড়শি দিয়ে মাছ ধরা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বড়শিটি কেড়ে নিতে চেষ্টা করলে বড়শির সুতা ও কালায় বেঁধে হাত কেটে যায়।

অপরদিকে একইদিন সকালে উপজেলার খাজুরা ইউনিয়নের সাধনগর গ্রামের মাছ চাষী সালামের লিজ নেওয়া পুকুরে স্থানীয় মহিষডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তাপস কুমার কারেন্ট জাল ফেলে ধরার চেষ্টা করলে তা বাধা দেওয়ায় মাছ চাষী সালামকে পেটানোর হুমকি দিয়েছেন। এ ঘটনায় মাছ চাষী সালাম সোমবার সন্ধ্যায় নলডাঙ্গা থানায় অভিযোগ দাখিল করেছে।

অভিযুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাপস কুমার দাবি করেছেন নিজের জায়গায় কারেন্ট জাল পেতে ছিলেন, কিন্ত জালটি বাতাসে সালামের লিজ নেওয়া পুকুরে চলে গেলে এনিয়ে কথা কাটাকাটি হয় পেটানোর হুমকি দেওয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, অভিযোগগুলো তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।