নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোর জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে বিভিন্ন নারী সংগঠন। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ‌‌‘সবাই মিলে ভাবো, নতুন কিছু করো নারী-পুরুষ সমতার নতুন বিশ্ব গড়ো’। তবে ৮ মার্চ নারী দিবস, কিন্তু দুইদিন আগে তা নাটোরে পালন করা নিয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা প্রশ্ন তুলেছেন।

বুধবার (৬ মার্চ) সকাল ১১টার দিকে শহরের মাদ্রসা মোড় এলাকায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচীতে যোগ দেন নাটোর জেলা প্রশাসক শাহরিয়াজ । এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ড. রাজ্জাকুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের কর্মকর্তা আনিসুর রহমান প্রমুখ।

এছাড়া নাটোর মহিলা পরিষদ, জাতীয় মহিলা উন্নয়ন সংস্থা, দুর্বার নেটওয়ার্ক, নারী পক্ষ, এডাবসহ বিভিন্ন নারী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ নেন এই মানববন্ধনে।

প্রসঙ্গত, ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। মূলত দিবসটি উদযাপনের পেছনে রয়েছে নারী শ্রমিকের অধিকার আদায়ের সংগ্রামের ইতিহাস। ১৯১৪ সাল থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ নারী দিবস পালিত হয়।

স্বাধীন বাংলাদেশেও ১৯৭১ সাল থেকেই ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। তবে দিবসটি বড় পরিসরে আন্তর্জাতিক দিবসের স্বীকৃতি পায় ১৯৭৫ সালে। বাংলাদেশে দিনব্যাপী র‌্যালিসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পালিত হয় আন্তর্জাতিক নারী দিবস।

সুফী সান্টুর আবেগঘন সংবাদ পরিবেশন: আন্তর্জাতিক নারী দিবস নিয়ে সাংবাদিক সুফী সান্টু আবেগঘন সংবাদ পরিবেশন করেন, সেই সংবাদের আবেগময় অংশটুকু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

মানবচক্রের যেই মাধ্যমে আমাদের এই পৃথিবীতে আসা, তার একটি অপার মাধ্যম এই নারী। এই নারী কখনো আপনার মা, কখনো আপনার বোন আবার কখনো স্ত্রী। ধর্মেও আছে নারীর সম্মানের স্থান। হাজার সম্পর্কের মাঝে তাদের সঙ্গে আপনার আমার সম্পর্ক অন্যতম। নিজেকে অন্যের সুখে হাসতে হাসতে বিলিয়ে দিতে পিছপা হন না এই নারী। তাই হয়তো একাই ভালোবাসে সমস্যা ও সমাধানের হালটি কাঁধে তুলে নিতে। নানা ঘাত-প্রতিঘাত পার করেই চলে এই নারীর জীবন। যার জন্য উৎসর্গ করা যায় বছরের প্রত্যেকটি দিন। তাকে উদ্দেশ্য করে যা-ই করা হয়, তা-ই হয়তো তার করা কাজের কাছে কম। তাই তার উদ্দেশ্য করে আর তাকে সম্মান জানাতে বিশ্বে একটি দিন পালিত হয় নারী দিবস হিসেবে।