নিউজ ডেস্ক: নাটোরে আরো ১৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক)’র ভাইরোলজি বিভাগের প্রধান ও ল্যাব ইনচার্জ প্রফেসর ডাঃ সাবেরা গুলনাহার।

বুধবার (১ জুলাই) জানা গেছে, আজ নাটোর জেলায় মোট ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে নাটোর সদর ট্রাফিক পুলিশের ২ সদস্যের পূনরায় নমুনা পরীক্ষাতেও করোনা পজিটিভ হয়েছেন। এছাড়া নাটোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মাহবুব হোসেন ও ট্রাফিক পুলিশের ২ সদস্যসহ নাটোর সদর উপজেলায় ৭ জন, সিংড়া উপজেলায় ৫ জন ও নলডাঙ্গা উপজেলায় আরো ১ পুলিশ সদস্য করোনায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাটোরের সিভিল সার্জন ডাঃ মিজানুর রহমান বলেন, তিনি টেলিফোনে বিষয়টি জেনেছেন। এর মধ্যে নাটোর সদরে ৭ জন ও সিংড়া উপজেলায় রয়েছে ৫ জন ও নলডাঙ্গা উপজেলায় ১ জন রয়েছেন। এ নিয়ে নাটোর জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৮৬ জন। এর মধ্যে নাটোর সদর হাসপাতালের সাবেক আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) মাহবুবুর রহমান করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

তিনি আরো জানান, নাটোরে সদরের বাকি ৪ জনের মধ্যে হুগোলবাড়িয়া এলাকার একজন রয়েছেন। তিনি ভোলা খাদ্য বিভাগে চাকরি করেন। অন্য তিনজনের মধ্যে এক নারী রয়েছেন। এছাড়া সিংড়ায় আক্রান্ত ৫ জনের সবাই পৌর এলাকার ঠিকানা ব্যবহার করেছেন। এর মধ্যে বগুড়ায় কর্মরত ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্য রয়েছেন। তবে তার প্রকৃত বাড়ি নওগাঁর আত্রাই থানার দর্শন গ্রামে।

ডাঃ মিজানুর রহমান জানান, নতুন আক্রান্ত সকলেই হোম আইসোরেশন ও আক্রান্তদের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। এছাড়া নাটোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা করোনা পজেটিভ হওয়ায় নাটোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্র আংশিক বা পূর্ণাঙ্গ লকডাউন করা হবে কিনা সে বিষয়ে আগামিকাল সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক)’র ভাইরোলজি বিভাগের প্রধান ও ল্যাব ইনচার্জ প্রফেসর ডাঃ সাবেরা গুলনাহার জানান, আজ রামেকের দুটি ল্যাবে ১৬৬টি নমুনার পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৪৩ জন করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে নাটোরে ১৫ জন রাজশাহীরতে ২৮ জন শনাক্ত হয়েছেন।