নিউজ ডেস্ক: নাটোরে আরো ২৪ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে যথারীতি শীর্ষে সদর উপজেলা। আক্রান্তদের মধ্যে নাটোর সদর উপজেলায় ১৬ জন সিংড়া উপজেলায় ৫ জন, গুরুদাসপুর উপজেলায় ২ জন ও লালপুর উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) রাতে ১৭৬ জনের নমুনার ফলাফলে ২৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে নাটোরের সিভিল সার্জন অফিস বিষয়টি জানায়। এছাড়া আরো ফলোআপ (আগেই করোনা আক্রান্ত ছিলেন, পরে আবার নমুনা পরীক্ষায়ও পজিটিভ) রোগীও শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে করোনা আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮২৭ জন। এর মধ্যে অন্তত ৪২৪ জন সুস্থ হয়েছেন। এছাড়া মারা গেছেন ছয়জন করোনা রোগী।

জানা গেছে, নাটোর সদর উপজেলায় আক্রান্তদের তালিকায় নাটোরের পরিচিত রাজনৈতিক ব্যক্তি, শহরের তৃষা ক্লিনিকের এক চিকিৎসক, নাটোর শহরের প্রাণকেন্দ্র কানাইখালির সোমা প্যাথলজির এক প্রবীণ টেকনিশিয়ান, পটুয়াপাড়া এলাকার এক যুবক, উত্তর পটুয়াপাড়া এলাকার একজন গৃহিণী, বঙ্গজল এলাকার এক নারী, কান্দিভুটিয়া ও আলাইপুর এলাকার ২ যুবক, মোহনপুর এলাকার এক বৃদ্ধ ও শংকরভাগ এলাকার দুই ব্যক্তি রয়েছেন।

এছাড়া বড়াইগ্রাম উপজেলায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা, পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের এক চিকিৎসকের মা, স্বদেশ ক্লিনিকের এক স্বাস্থ্যকর্মী, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক স্টাফ নার্স। অন্যদিকে গুরুদাসপুর উপজেলায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার এক শিশুপুত্র করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যদিকে লালপুর উপজেলায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছেন রূপপুরে পারমাণবিক কেন্দ্রে চাকরির জন্য আবেদনকারী রাকসা ও গোপালপুরের ২ রাজমিস্ত্রি, বিলমাড়ীয়া এলাকার এক পল্লী চিকিৎসকের স্ত্রী, উপজেলার গন্ডগোল এলাকার সাবেক এক শিক্ষক এবং কচুয়া গাড়ি এলাকার এক ওয়ার্কসপ কর্মী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাটোরের সিভিল সার্জন ডা. কাজী মিজানুর রহমান জানান, আক্রান্তদের সংসর্স্পে যারা এসেছেন তাদের নমুনা সংগ্রহসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম চলমান রয়েছে।