নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোর উত্তরা গণভবনে শ্যামল-শ্যামা দম্পতির ঘরে জন্ম নিয়েছে একটি হরিণ শাবক। তার নাম দেয়া হয়েছে শুক্লা। গণভবনের হরিণ চূড়ায় থাকা ৫টি হরিণের মধ্যে ৩টি নারী ও ২টি পুরুষ। এদের মধ্যে রাণী মহল চত্বরে থাকা শ্যামল-শ্যামা দম্পতির ঘরে বুধবার সকালে জন্ম নেয় এ শাবকটি।

খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক মোহম্মদ শাহরিয়াজ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং হরিণ শাবকের নাম রাখেন শুক্লা।

উত্তরা গণভবনের দায়িত্বরত কর্মকর্তা ও এনডিসি অনিন্দ্য মন্ডল জানান, নাটোরের ঐতিহ্যবাহী দিঘাপতিয়া রাজবাড়ি তথা উত্তরা গণভবনের পুরনো ধারা ফিরিয়ে আনতে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গত বছর সংগ্রহ করা হয়েছিল হরিণগুলো। এর মধ্যে শ্যামার গর্ভে জন্ম নেয় উত্তরা গণভবনের নতুন অতিথি শুক্লা। জেলা প্রশাসনসহ উত্তরা গণভবনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা এতে আনন্দিত।

জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ বলেন, “নাটোরের উত্তরা গণভবনের চিড়িয়াখানায় মোট ৫টি হরিণ ছিল। এর মধ্যে শ্যামল-শ্যামা দম্পতি একটি বাচ্চা প্রসব করায় চিড়িয়াখানায় হরিণের সংখ্যা এখন ৬টি। বাচ্চা প্রসবের পর মা শ্যামা ও বাচ্চা শুক্লা সুস্থ আছে। তাদের পরিচর্যার জন্য জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।