নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোরে ৪ টি আসনে মোট ভোটার ১৩ লাখ ৩ হাজার ৭৩১। এর মধ্যে নারী ভোটার ৬ লাখ ৫৩ হাজার ৩৪৩। আর পুরুষ ভোটার ৬ লাখ ৫০ হাজার ৩৮৮। নাটোরের ৪ টি আসনে কে, কার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বি তা দেয়া হলো:

নাটোর-১ (লালপুর ও বাগাতিপাড়া উপজেলা) মোট ভোটার ৩,১১,৮৬৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,৫৬,৫০৩ জন। আর নারী ভোটার ১,৫৫,৩৬৬ জন।এই আসনে নৌকার শহীদুল ইসলামের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মনজুরুল ইসলাম ও বিএনপির অধ্যাপিকা কামরুন্নাহার শিরীন। সম্প্রতি তিনি ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছেন হাইকোর্টের এক আদেশে। এই আসনে সবাই নতুন প্রার্থী। তবে প্রচার- প্রচারণা কিংবা সাংগঠনিক শক্তির দিক থেকে এখানে আওয়ামী লীগ এগিয়ে আছে বলে স্থানীয়রা মনে করছেন।

নাটোর-২ (সদর ও নলডাঙ্গা উপজেলা) মোট ভোটার ৩,৪৩,৯৬৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,৭০,৯৪৫ জন। আর নারী ভোটার ১,৭৩,০২১ জন।এখানে আওয়ামী লীগের শফিকুল ইসলামের প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাবিনা ইয়াসমিন। সাবিনা ইয়াসমিন বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর স্ত্রী। দুলু সাজাপ্রাপ্ত আসামি হওয়ায় নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না। তবে এলাকায় তাঁর প্রভাব রয়েছে। স্বামীর বদলে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় সাবিনা এলাকাবাসীর সহানুভূতি পাচ্ছেন।

নাটোর-৩ (সিংড়া উপজেলা) মোট ভোটার ২,৭৬,১৪৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,৩৭,৯১৭ জন। আর নারী ভোটার ১,৩৮,২২৯ জন।এই আসনে আওয়ামী লীগের জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিএনপির দাউদার মাহমুদ। তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ এই আসনের বর্তমান সাংসদ। ২০০৮ সালেও তিনি এখান থেকে জয় পেয়েছিলেন। তরুণ এই নেতা এলাকায় অত্যন্ত জনপ্রিয়। গত ১০ বছরে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন তিনি। এতে তাঁর জনসমর্থন আরও বেড়েছে। বিপরীতে দাউদার মাহমুদ এবারই প্রথম জাতীয় নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর ও বড়াইগ্রাম উপজেলা) মোট ভোটার ৩,৭১,৭৫০ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১,৮৫,০২৩ জন। আর নারী ভোটার ১,৮৬,৭২৭ জন। নাটোর-৪ আসনে আওয়ামী লীগের আবদুল কুদ্দুসের প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আবদুল আজিজ। আবদুল কুদ্দুস প্রবীণ নেতা। এলাকায় তিনি অত্যন্ত প্রভাবশালী। এর আগে পাঁচটি নির্বাচনে অংশ নিয়ে চারটিতেই জয় পেয়েছেন তিনি। অন্যদিকে ধানের শীষের আবদুল আজিজ একেবারেই নতুন প্রার্থী।