নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোরে দেবর-ভাবীর পরকীয়া প্রেমের জেরে ছোট ভাইয়ের কোপে গুরুতর আহত বড় ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। নিহত দুলাল হোসেন একই গ্রামের মুনছের আলীর ছেলে। এ ঘটনায় স্থানীয়রা ছোট ভাই আরিফ হোসেনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী জালাল উদ্দিন আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) সকালে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কার মৃত্যু হয়। এর আগে গত বুধবার সদর উপজেলার দস্তানাবাদ গ্রামে ছোট ভাই আরিফুল ইসলামের (৩৮) ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বড় ভাই দুলাল হোসেন (৪৪) গুরুতর আহত হন।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, দুলাল হোসেনের স্ত্রীর সাথে দেবর আরিফুল ইসলামের পরকীয়ার সম্পর্কের জেরে প্রায়ই ঝগড়া-বিবাদ লেগে থাকতো পরিবারটিতে। এ নিয়ে সম্প্রতি নাটোরের দত্তপাড়ায় একটি পারিবারিক সালিশও বসানো হয়। তবুও পরকীয়ার সম্পর্ক অব্যাহত থাকায় গত ৩রা এপ্রিল নিজ বাড়িতে দুলাল ও আরিফুলের মধ্যে তীব্র বাকবিতন্ডা হয়। এরই এক পর্যায়ে ছোটভাই আরিফুল বড়ভাই দুলালের গলায় দা দিয়ে কোপ দেয়। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় দুলালকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শুক্রবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণজনিত কারণে দুলালের মৃত্যু হয়।

নাটোর থানার পুলিশ পরিদর্শক আবু সিদ্দিক জানান, দুলাল হোসেনের মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ছোট ভাই আরিফ হোসেন বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী আরিফ হোসেনকে আটক করে ৯৯৯ ফোন করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আরিফ হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী জালাল উদ্দিন আহমেদ জানান, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ দায়ের করেনি। তবু এটি হত্যাকাণ্ড হওয়ায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।