নিউজ ডেস্ক: নাটোরে পূর্ব শত্রুতার জেরে লিটন আলী নামে এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে প্রতিবেশী ইমান আলী ও তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কুপিয়ে আহত করায় নাটোর সদর থানায় অভিযোগ দিয়েছে ভুক্তভোগীর পরিবার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাটোর সদর থানার ওসি (অপারেশন) আবু বকর সিদ্দিক।

এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে নাটোর সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এর আগে বুধবার বিকালে নাটোর সদর উপজেলার বড় হরিশপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ইমান আলী একই এলাকার বাচ্চু মিয়ার ছেলে। আর লিটল আলী ২ নং বড় হরিশপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, নাটোর সদর উপজেলার বড় হরিশপুর এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে লিটল আলী ও তার সমর্থকরা বুধবার বিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ প্রতিবেশী রুবেল হোসেনের বাড়ী গিয়ে রুবেলের উদ্দেশ্যে অকথ্য ভাষা গালাগালাজ করতে থাকে। এ সময় লিটন ও সমর্থকরা রুবেলকে মারধর করার সময় রুবেলকে বাঁচতে এগিয়ে আসে তার ভাই ইমান আলী ও তার মা মোছাঃ মেহের বেগম।

এ সময় লিটনের নির্দেশে তার সমর্থকরা ইমান আলীকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে এবং মেহের বেগমকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে ভুক্তভোগীদের আর্ত চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে প্রতিপক্ষরা ইমান হোসেনের কাছে থাকা নগদ ৩০ হাজার টাকা এবং তার মায়ের ২৭ হাজার টাকা সমমূল্যের একটি স্বর্ণের চেন ছিনিয়ে নিয়ে যায় বলে অভিযোগে বলা হয়।

পরে স্থানীয়রা ইমান হোসেনকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এঘটনায় রুবেল হোসেন বাদী হয়ে নাটোর সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আহতের ভাই রুবেল হোসেন অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ নেতা লিটন বিভিন্ন সময় তাকে অনৈতিক কাজের সাথে সম্পৃক্ত করার প্রস্তাব দিত। কিন্তু তাতে রাজি না হওয়ায় লিটন তার ও পরিবারের উপর হামলা চালিয়েছে। এছাড়া, লিটল নারী কেলেঙ্কারী ঘটনার সাথেও জড়িত বলে জানান তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাটোর সদর থানার ওসি (অপারেশন) আবু বকর সিদ্দিক জানান, এ ব্যাপারে ভুক্তভোগীর ভাই থানায় অভিযোগ করেছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।