নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোরে সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বর্তমানে জেলা যুবলীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নিখোঁজ জামিল হোসেন মিলনের সন্ধানের দাবিতে কাফনের কাপড় বেঁধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে তার সমর্থকরা।

রোববার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তার অনুসারী সহস্রাধিক নেতাকর্মী ও আত্মীয়-স্বজন মাথায় কাফনের কাপড় বেধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। শহরের তালতলা হাফরাস্তা মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নাটোর প্রেসক্লাবের সামনের মহাসড়কে সমবেত হয়ে মানববন্ধন করে।

মানববন্ধনের সময় শহরে সবধরণের যানবাহন বন্ধ রাখায় শহরের দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। মিলনকে তুলে নেয়ার ঘটনার পর থেকে তার সমর্থকরা নিয়মিত নাটোর শহরের বিক্ষোভ মিছিল, হরতাল, মানববন্ধন, সড়ক অবরোধসহ নানা কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে। তবে স্থানীয় সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের প্রিয়ভাজন যুবলীগ নেতা জামিল হোসেন মিলন নিখোঁজ হওয়ায় চাপা আতঙ্ক ও থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।

এসময় বক্তব্য রাখেন, নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মুর্তজা আলী বাবলু, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন বিপ্লব, জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস, জেলা কৃষক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল ওয়াহাব ও সদর উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও নাটোর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রভাষক আনোয়ার হোসেন আনু।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোর্তজা আলী বাবলু বলেন, আজ প্রায় ৪ দিন হয়ে গেল মিলন নিখোঁজ। এই কয়দিনেও কেউই মিলনের কোন খোঁজ দিতে পারছেন না। অবিলম্বে প্রশাসনকে নিখোঁজ মিলনকে সুস্থ্য অবস্থায় উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে হবে।

মিলনের পিতা শহরের তালতলা হাফরাস্তা এলাকার এমদাদুল হক মিয়াজি বলেছেন, মিলনকে তুলে নেওয়ার পর থেকে গত তিন দিনে তিনি রাজশাহী বিভাগের প্রতিটি র‌্যাব কার্যালয় ও থানাসমূহে খোঁজ নিয়ে ছেলের কোন সন্ধান পাননি।

এব্যাপারে নাটোরে পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন ও নাটোর র‌্যাব-৫ ক্যাম্পের কমান্ডার যায়েদ শাহরিয়ার জানান, তারা সকল প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে নিখোঁজ জামিল হোসেন মিলনের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ ও তাকে উদ্ধারের সব ধরণের চেষ্টা চালাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, মিলনের বাবা এমদাদুল হক মিয়াজী নাটোর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে ও নাটোর থানায় দায়েরকৃত জিডিতে অভিযোগ করেন, র‌্যাব পরিচয়ে সাদা পোশাকের একটি দল গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে তালতলা হাফরাস্তা এলাকা থেকে তার ছেলেকে তুলে নিয়ে গেছে।