নিউজ ডেস্ক: নাটোরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে সদর উপজেলার ছাতনী ইউনিয়নের পন্ডিতগ্রাম বটতলা মোড় থেকে হাড়িগাছা আবুর মোড় পর্যন্ত পাকা রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

প্রায় দেড় কিলোমিটার নির্মিত এই রাস্তায় ব্যবহার করা হচ্ছে রাস্তার নিচে থাকা পুরাতন ইটের খোয়া। সিডিউল অনুযায়ী রাস্তার পিচের স্তর তুলে ফেলে তার উপরে বালি দিয়ে দুই ইঞ্চি নতুন খোয়া ফেলানোর কথা থাকলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রাস্তার পুরাতন ইট তুলেই কাজ করছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, এলজিইডি প্রকৌশলী সাথে যোগসাজসে এসব করছে ঠিকাদার। অবিলম্বে রাস্তায় এসব নিন্মমানের ইট অপসারণ করে উন্নতমানের ইট দিয়ে নতুন করে রাস্তা নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

এদিকে অভযোগ উঠেছে ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ অনেক সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হলেও পন্ডিতগ্রাম বটতলা থেকে চরপাড়া পর্যন্ত এক কিলোমিটার ভালো সড়ক অযথা নতুনভাবে তৈরি করা শুরু করেছে।

এছাড়া একই ইউনিয়নের নান্নুর মোড় থেকে পন্ডিতগ্রাম স্কুল পর্যন্ত এবং একডালা মোড় থেকে চন্দ্রকোলা পর্যন্ত সড়কটিতেই নিম্নমানের ইটের খোয়া ব্যবহারের অভিযোগ পাওয়া রয়েছে।

পন্ডিতগ্রাম বটতলা গ্রামের আবু সাইদ, আনিসুর রহমান, আরিফা বেগম, হাফিজুল, তাসলিমাসহ আরো অনেকেই অভিযোগ করে জানান, প্রায় ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে রাজশাহীর রওনক এন্টার প্রাইজ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এ রাস্তার কাজ শুরু করেছে। কাজটি ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখনও অবধি এর ৫০ ভাগ কাজ বাকি রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীদের। এরই মধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও এলজিইডি প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে এই রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, এই রাস্তাগুলো নির্মাণে শুরু থেকেই ব্যাপক অনিয়ম। আমরা ঠিকাদার ও প্রকৌশলীকে বারবার বলেও কোনো লাভ হয়নি। তারা আমাদের কথার কোন গুরুত্ব না দিয়ে নিজের ইচ্ছে মত রাস্তার পুরাতন খোয়া এবং ৩ নং ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করেছে। আবার ভালো রাস্তা ভেঙ্গে নতুন ভাবে তৈরি হচ্ছে। যার কোন প্রয়োজনই ছিল না।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রকৌশলী অফিস ম্যানেজ করে প্রতিটি রাস্তায় ব্যবহার করা হয়েছে নিন্মমানের ইট ও কিছু কিছু জায়গায় বালির বদলে মাটি। এই কাজে অনিয়মের বাধা দিতে গেলে বিভিন্নভাবে হুমকি দেয়া হয় তাদের। তাই ক্ষুব্ধ তারা। তাদের দাবি নিন্মমানের ইট অপসারণ করে উন্নতমানের ইটের খোয়া দিয়ে অবিলম্বে নতুন করে রাস্তা নির্মাণ করা হোক।

স্থানীয় গ্রামবাসী আমিন মিয়া, আব্দুল জলিল জানান, ঠিকাদাররা বাড়তি লাভ করার জন্য নিন্মমানের কাজ করছে। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় বারবার বলেও কোনো লাভ হয়নি। দরপত্রের কোন শর্ত তারা মানছে না। তবে আমরা চাই ছাতনী ইউনিয়নের রাস্তার কাজগুলো ভালোভাবে হোক। রাস্তায় এসব নিন্মমানের ইট অপসারণ করে উন্নতমানের ইট দিয়ে নতুন করে রাস্তা নির্মাণে সংশ্লিষ্টরা দ্রুত পদক্ষেপ নিবেন এমনটাই দাবি এলাকাবাসীর।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান রওনক এন্টার প্রাইজের সত্বাধিকারী রায়হান হোসেন জানান, কাজটি আমি যাদের তদারকি করতে দিয়েছিলাম তারা নিম্নমানের কাজটি করেছে। আমরা সিডিউল অনুযায়ী কাজটি করবো। এ ব্যাপারে লেখালেখি করবেন না প্লিজ।

বাকি দুটি প্রতিষ্ঠানের কারো বক্তব্য পাওয়া না গেলেও এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী এম শহিদুল ইসলাম এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাদের অফিসের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে তা সত্য নয়। এই রাস্তায় অনিয়ম করেছে ঠিকাদার। আমরা ঠিকাদারের এমন অনিয়মের কারণে কাজ বন্ধ করে দিয়েছি।

এছাড়া বাকি দুটি কাজের ব্যাপারে ঠিকাদারদের সতর্ক করা হয়েছে এবং নতুনভাবে শুরু করতে বলা হয়েছে। ঠিকাদারের এসব অনিয়মের দায় আমরা নিব না।

তিনি আরো বলেন, আপনারা এসব নিয়ে লেখালেখি করলে নাটোরে উন্নয়ন কাজ ব্যাহত হবে। আগের মতো বরাদ্দ আসবে না।