নিউজ ডেস্ক: নাটোর সদর উপজেলা প্রশাসনের দৃঢ়তায় তেবাড়িয়া ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা বাজারের নিকট হোজাই নদী থেকে দোলেরভাগ ব্রীজের মোড় পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার খাল দখল মুক্ত করা হয়েছে। এর ফলে জলাবদ্ধতা মুক্ত হলো ৫০০ একর কৃষি জমি।

বুধবার (১২ আগস্ট) সকাল থেকে এস্কেভেটর মেশিন দিয়ে জিয়া খালের বাঁধ অপসারণের কাজ শুরু করা হয়। এর আগে বিষয়টি সরজমিনে দেখে নাটোর সদর সহকারী কমিশনার (ভুমি) আবু হাসান সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে বাঁধগুলো অপসারণ করে খাল দখল মুক্ত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেন।

নাটোর সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ মেহেদুল ইসলাম জানান, এসব বাঁধ অপসারণ করার ফলে বালিয়াডাঙ্গা ও বিলটুঙ্গি এলাকায় অতিবৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যার পানি নেমে যাবে। ফলে কৃষকরা তাদের প্রায় পাঁচশ’ একর আবাদী জমির জলাবদ্ধতা সমস্যার সমাধান খুঁজে পেল। এখন অনায়াসে তাঁরা ঐসব জমিতে আবাদ করতে পারবেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু হাসান জানান, সদর উপজেলার তেবাড়িয়া ইউনিয়নের বালিয়াডাঙ্গা বাজারের নিকট হোজাই নদী থেকে দোলেরভাগ ব্রীজের মোড় পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার খাল ছিল। খালের ৩২ টি পয়েন্টে লোকজন নিজেদের বাড়িতে যাওয়ার চিকন রাস্তা তৈরি করে পানি প্রবাহ বন্ধ করে দিয়েছিল।

তিনি আরো জানান, বালিয়াডাঙ্গা ও বিলটুঙ্গি এলাকার প্রায় ১৫০০ বিঘা (৫০০ একর) কৃষি জমির পানি হুজাই নদীতে প্রবেশ বাধাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। বন্যার সময় ব্যাপক ফসলহানি হয়। বিষয়টি সমাধানের জন্য ঈদের পূর্বে নাটোর সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসারকে সঙ্গে নিয়ে এলাকা পরিদর্শন করি। আজ (বুধবার) উক্ত বাঁধগুলো অপসারণের জন্য সিনিয়র স্যারদের পরামর্শক্রমে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও ক্ষতির সম্মুখীন কৃষকদের নিয়ে এক্সক্যাভেটর দিয়ে খালের বাঁধগুলো অপসারণের কাজ শুরু করলাম।

এছাড়া লোকজনকে মোটা চোঙ ব্যবহার করে খালের পানি প্রবাহ অব্যাহত রাখতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে। জনস্বার্থে প্রশাসনিক অভিযান অব্যাহত রেখে জনকল্যাণে কাজ করে যাবে প্রশাসন বলেও মন্তব্য করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবু হাসান।