নিউজ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় দৈনিক বিজয় পত্রিকার সাংবাদিক ইলিয়াসকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় পুলিশ মাদক ব্যবসায়ী তুষারকে গ্রেফতার করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বন্দর থানার সহকারী পরিদর্শক (এসআই) তাওহীদ।

রোববার (১১ অক্টোবর) রাত সাড়ে নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্বজনদের অভিযোগ, মাদক ব্যবসা নিয়ে খবর প্রকাশ করায় সন্ত্রাসীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করেছে। গ্রেফতারকৃত তুষার বন্দরের আদমপুর এলাকার মৃত জামানের ছেলে।

স্থানীয়দের দাবি, এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ায় পরিকল্পিতভাবে ইলিয়াছকে হত্যা করা হয়েছে। তবে পুলিশ বলছে, হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা জানা যায়, জিওধারা এলাকার মজিবর মিয়ার ছেলে ইলিয়াস বাড়ি ফেরার পথে বন্দরে আদমপুর এলাকায় তার গতিরোধ করে তুষারসহ কয়েকজন সন্ত্রাসী। ইলিয়াস স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক বিজয়ের ফটো সাংবাদিক। স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ওই পত্রিকায় একাধিকবার নিউজ হয়। এ নিয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা ইলিয়াসের ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। রবিবার রাত ৯টার দিকে তিনি বাড়ির পাশের রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এ সময় পুলিশের তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ইলিয়াসের প্রতিবেশী তুষার ও তুর্যের নেতৃত্বে ৪/৫ জন দুর্বৃত্ত ধারাল অস্ত্র নিয়ে ইলিয়াসের ওপর হামলা চালায়। তারা ইলিয়াসকে বৈদ্যুতিক খুটির সঙ্গে আটকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে। এতে ইলিয়াসের বুকে ও পিঠে ৪/৫টি আঘাত লাগে। পরে স্থানীয়রা ইলিয়াসকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় ব্যবসায়ী তাওলাদ হোসেন বলেন, আমি দেখলাম তুষার ইলিয়াছকে বাবা মা তুলে গালিগালাজ করে বুকে একটা ঘুষি দেয়। আর বলতে থাকে, তুই কতো বড় সাংবাদিক হইছিস? আমি এখন তোরে দেখাইয়া দিব। এই বলে ইলিয়াছকে মারধর করতে করতে টেনে হেঁচড়ে একটা অন্ধকার স্থানে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর কাছে গিয়ে দেখি ইলিয়াছের গায়ের শার্ট ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। তার বুকে ও পেটে তিন চার জায়গায় ছুরিকাঘাতের ক্ষত। সেই ক্ষত স্থান গুলো দিয়ে রক্ত ঝরছে। পরে তার স্ত্রীকে ফোন করে খবর দেই। তারা আসলে আমি সহ এলাকাবাসী ইলিয়াছকে ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়।

দৈনিক বিজয় পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাব্বির আহম্মেদ সেন্টু বলেন, মাদক ব্যবসায়ী তুষার বাহিনীর বিরুদ্ধে সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় সাংবাদিক ইলিয়াছকে টার্গেট করে তারা। সেই থেকে ইলিয়াছের প্রতি মাদক ব্যবসায়ীদের ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। এর জের ধরেই তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বন্দর থানার সহকারী পরিদর্শক (এসআই) তাওহীদ জানান, রাতে বন্দরের আদমপুর এলাকায় সন্ত্রাসীরা ইলিয়াসকে ছুরিকাঘাত করলে সাংবাদিক ইলিয়াস গুরুতর জখম হয়। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

তবে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফখরুদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, সাংবাদিক ইলিয়াছকে কুপিয়ে হত্যার সাথে জড়িত অভিযোগে তুষার নামে একজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তার শরীরের পোশাকের বিভিন্ন অংশে রক্ত লেগে থাকায় ধারণা করা হচ্ছে সে-ই এই হত্যাকাণ্ডের মূল হোতা। আরও কেউ জড়িত থাকলেও তাদেরকেও আমরা গ্রেফতার করবো।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-সার্কেল) খোরশেদ আলম জানান, এ ঘটনায় মূল আসামি তুষারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ধারাল ছুরি উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে চিরুনী অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।