ছবি: প্রতীকী

নিউজ ডেস্ক: নোয়াখালী সদর উপজেলার এওজবালিয়া ইউনিয়নে এবার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) নবীর হোসেন।

বুধবার (৭ অক্টোবর) সুধারাম থানায় নির্যাতিত কিশোরী নিজেই অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত যুবকের নাম জসীম উদ্দিন। সে পূর্ব এওজবালিয়া গ্রামের মৃত বাবুল মিয়ার ছেলে।

মামলার এজাহারে জানা যায়, পূর্ব এওজবালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জসীম উদ্দিন (২২) নামে এক যুবক প্রেম নিবেদন করতো, কিশোরী তাতে সম্মতি না দেয়ায় জসীম হুমকি দিয়ে আসছিল। এর মধ্যে তাকে বিয়ে করবে এমন আশ্বাস দিয়ে এক মাস পূর্বে বাড়ির পেছনের বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে। এছাড়া বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক মাসে চারবার ধর্ষণ করে এবং সর্বশেষ ১৫ সেপ্টেম্বরও তাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণ করে। এখন জসীম বিয়ে করার আশ্বাস ও ধর্ষণের বিষয়ও অস্বীকার করছে।

এ ব্যাপারে কিশোরীর মা বলেন, আমি চট্টগ্রামে থাকি। এই সুযোগে জসীম সবসময় মেয়েকে স্কুলে যাওয়া আসার পথে উত্ত্যক্ত করতো, ভয়-ভীতি দেখাতো। স্কুল থেকে ফিরে মেয়ে কাউকে কিছু বলতো না। সোমবার আমি চট্টগ্রাম থেকে আসার পর রাতে আমার মেয়েকে বাইরে নেওয়ার জন্য জসীম আসে। এ সময় সব কথা মেয়ে আমাকে খুলে বলে। এখন ছেলেটি বিয়ে করবে না বলে জানায়। আমি এলাকাবাসীকে বিষয়টি অবহিত করলে তারা থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) নবীর হোসেন জানান, এ ঘটনায় মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।