নিউজ ডেস্ক: তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, যদি কারো ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়, তাহলে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ থেকে ভুক্তভোগীকে আইনি সহায়তা দেয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) নাটোরের সিংড়া দমদমা পাইলট স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তায় মেয়েদের সচেতনতা’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, কারও ফেসবুক হ্যাক হলে তাদের প্রযুক্তি ও আইনগত সহায়তা দিতে আইসিটি বিভাগের অধীন ‘সাইবার সিকিউরিটি হেল্প ডেস্ক’ প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। এছাড়া ইন্টারনেট ব্যবহারে শিক্ষার্থীদের আরও সচেতন এবং সাবধান হওয়ারও পরামর্শ দেন তিনি।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, এখন দেশে যত সাইবার ক্রাইম হয় তার মধ্যে প্রায় ৭০ শতাংশ কিশোরী শিকার হচ্ছে। আইসিটি বিভাগের অধীন প্রতিষ্ঠিত হতে যাওয়া ‘সাইবার সিকিউরিটি হেল্প ডেস্ক’ থেকে এই সহায়তা পাওয়া যাবে।

জুনাইদ আহমেদ পলক আরো বলেন, কেউ যদি এ ধরনের পরিস্থিতির শিকার হয় তাহলে ৯৯৯ ফোন করে পুলিশের সহায়তা নিতে পারে। এসময় তিনি সাইবার অপরাধে শিকার হওয়া কিশোরীদের মানসিকভাবে ভেঙে না পড়ারও পরামর্শ দেন।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট ও ফেসবুকের পাসওয়ার্ড দেয়া ও সামাজিক মাধ্যমে কিছু শেয়ার করার বিষয়ে অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে। তা না হলে চরম অসুবিধার মধ্যে পড়তে হবে। পরিচয় যাচাই না করে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট গ্রহণ করা যাবে না।

তিনি বলেন, সাইবার স্পেসকে নিরাপদ রাখতে মূলত যে চারটি পূর্বশর্ত নিশ্চিত করতে হয়, সেগুলো হচ্ছে- প্রথমত, ব্যক্তিগত পর্যায়ে সচেতনতা তৈরি। দ্বিতীয়ত, পারিবারিক ও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাদান। তৃতীয়ত, প্রযুক্তিগত সক্ষমতা। চতুর্থত, আইনের কঠোর প্রয়োগ। এছাড়া সত্য-মিথ্যা যাচাই না করে ইন্টারনেটে কোনও কন্টেন্ট শেয়ার করতে সবার প্রতি আহ্বানও জানান প্রতিমন্ত্রী পলক।