নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ১০ মার্চ প্রথম ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাগাতিপাড়া উপজেলায় শেষ মুহুর্তের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রার্থীরা।

প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই এ উপজেলায় প্রার্থীরা বেশ সরগরম রয়েছেন। প্রতিটি বাজার-গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় ছেয়ে গেছে পোষ্টারে পোষ্টারে। প্রচারণার অংশ হিসাবে প্রতিটি এলাকায় করা হয়েছে নির্বাচনী ক্যাম্প।

এসব ক্যাম্পে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত চলছে নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা। বাজার-হাট গুলোতে চলছে প্রার্থীদের নানা বিষয় নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষন। প্রার্থীদের পক্ষে প্রচারণা চালাতে গ্রামে-গ্রামে ছুটে বেড়াচ্ছেন কর্মী-সমর্থকেরা। চলছে মজার মজার নানান শ্লোগানে মাইকিং।

এর সাথে যুক্ত হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। সেখানে প্রার্থী ও তার সমর্থকেরা উপজেলার বিভিন্ন স্থানের গণসংযোগের ছবিও পোস্ট করছেন এবং প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন।

এ নির্বাচনে বাগাতিপাড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে দু’জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দলীয় মনোনীত বর্ষীয়ান নেতা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার রহমান নৌকা প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন। তিনি দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন।

তার প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটের মাঠে আনারস প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী অহিদুল ইসলাম গকুল। অহিদুল ইসলাম গকুল বর্তমান সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুলের আপন ভাই এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের লতিফ হল শাখার সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি ভোটারদের মন জয় করতে নানা কৌশল অবলম্বন করছেন তাদের সমর্থকরা। উভয় প্রার্থীই তাদের প্রচারনার মাঠ দখলে রেখেছেন। ব্যাপক গনসংযোগ, সভা, সমাবেশসহ সব ধরনের প্রচারনায় প্রার্থীরা মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন।

উভয় প্রার্থীর সমর্থকেরা নিজ নিজ প্রার্থীর জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। সাধারণ ভোটাররা বলছেন, তাদের পছন্দের প্রার্থীকেই ভোট দিয়ে উপজেলা পরিষদে বসাতে চান। অন্যদিকে বসে নেই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরাও। তারাও সমান তালে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রচার-প্রচারণা।

এ নির্বাচনে এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার জন প্রার্থী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান পদের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হলেন, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান দোলন (তালা প্রতীক), উপজেলা ওলামা লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী আমানুর রহমান (উড়োজাহাজ প্রতীক), আমানুল্লাহ আমান (টিউবয়েল প্রতীক) এবং ওয়ার্কাস পার্টি মনোনীত উপজেলা কৃষক সমিতির সভাপতি আব্দুল হাদী (হাতুড়ি প্রতীক)।

অন্যদিকে, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি লুৎফুন্নাহার লতা (কলস প্রতীক), শাহিদা হক মিতা (হাঁস প্রতীক) এবং খোদিজা বেগম শাপলা (ফুটবল প্রতীক) নিজ নিজ প্রতীকে ভোট প্রার্থনায় নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন।