নিজস্ব প্রতিবেদক: বাগাতিপাড়ায় শ্বাশুড়ীমাকে গালি দিতে নিষেধ করায় দা দিয়ে কুপিয়ে হেলেনা বেগম (৩০) নামের এক গৃহবধুকে আহত করার অভিযোগ উঠেছে তার ভাসুরের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে আহত গৃহবধুর স্বামী কামরুজ্জামান তার ভাই আজাদ ও ভাবি শাপলা বেগমের বিরুদ্ধে বাগাতিপাড়া মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

উপজেলার বাটিকামারি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত হেলেনা বেগম ওই গ্রামের কামরুজ্জামান মাহাবুবের স্ত্রী। বাগাতিপাড়া থানা পুলিশের এএসআই আব্দুল আওয়াল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগে বলা হয়, আজাদ হোসেন পারিবারিক কলহের জের ধরে তাদের মা শামসুন্নাহারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। সেসময় তার স্ত্রী হেলেনা বেগম মাকে গালি দিতে নিষেধ করেন ভাসুর আজাদকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তার ভাই আজাদ হোসেন দা দিয়ে তার স্ত্রী হেলনাকে কুপিয়ে আহত করেন। সেসময় তার ভাবি শাপলা বেগমও হেলেনাকে কিল-ঘুষি মারে। পরে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

মা শামসুন্নাহার বলেন, লাউ ছেঁড়া নিয়ে মাহাবুব ও আজাদ দুই ভাইয়ের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হচ্ছিল। তাদেরকে থামাতে গেলে আজাদ গালিগালাজ করে ধাক্কা দিয়ে আমাকে (মাকে) মাটিতে ফেলে দেয়। সেসময় মাহাবুব ও তার স্ত্রী প্রতিবাদ করলে দা দিয়ে মাহাবুবের স্ত্রীকে কোপ দেয়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আজাদ হোসেন বলেন, অনেকদিন আগে থেকেই মাহাবুব আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এর আগে কয়েকবার আমাকে মারতে ধাওয়া করেছিল। ঘটনার দিন সকালে লাউ এর গাছ নষ্ট করা নিয়ে মাকে বুঝাচ্ছিলাম। সেসময় মাহাবুব ও তার স্ত্রী আমাকে টুল দিয়ে মারতে আসলে আমি প্রতিহত করতে গিয়ে আমার হাতে থাকা দা লেগে তার কপাল কেটে গেছে। তবে কোপানোর অভিযোগ সঠিক নয়।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই আব্দুল আওয়াল জানান, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে।