বিশেষ প্রতিবেদক: দিনাজপুরের বিরামপুরে পৌর এলাকার চকপাড়া (শাহিনপুকুর) মহল্লায় স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ শিবলী সাদিক, উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু ও পৌরসভার মেয়র লিয়াকতক আলী সরকার টুটুলের ছবিসহ মাদক বিরোধী স্লোগান সম্বলিত ২নং ওয়ার্ড মাদক নির্মূল কমিটির ডিজিটাল সাইনবোর্ড রাতের আঁধারে ভাংচুর করেছে দুর্বিত্তরা।

গত মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) ভোরে মাদক ব্যবসায়ীদের মদদে দুর্বিত্তরা সাইনবোর্ডটি ভাংচুর করে ফেলে রেখে যায়। এ বিষয়ে মাদক নির্মূল কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আহম্মদ আলী বাদী হয়ে বিরামপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উক্ত এলাকায় কিছু অসাধু মাদক ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন যাবৎ মাদক ক্রয়-বিক্রয় করে যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছিল। এমতাবস্থায় মাদক থেকে যুব সমাজকে রক্ষার জন্য স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা আহম্মদ আলী, মামুনুর রশিদ, মমতাজ আলী, হারুনুর রশিদ, আবু কালাম, আসমান আলী, আলেফ উদ্দিনসহ বেশকিছু গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ একত্রিত হয়ে সমাজ থেকে মাদক নির্মূলের লক্ষ্যে সম্মিলিতভাবে একটি মাদক নির্মূল কমিটি গঠন করেন।

এরপর থেকেই নানা রকম মাদক বিরোধী ও জনসচেতনতা মূলক স্লোগান সম্বলিত ব্যনার, ফেস্টুন লাগিয়ে এলাকাবাসী মাদক হতে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

এতে করে এলাকার নারী মাদক ব্যবসায়ী পুনি, মিনা ও মোনো সহ গুটি কয়েক মাদক কারবারীরা তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়। এলাকাবাসী তাদেরকে বারবার নিষেধ করার পরও কোন তোয়াক্কা না করেই অবাধে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

সম্প্রতি উক্ত এলাকার শাহিনপুকুর মহল্লার তিন রাস্তার মোড়ে জনগণকে সচেতন করার লক্ষে সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়রের ছবি সম্বলিত মাদক বিরোধী স্লোগানের একটি ডিজিটাল সাইনবোর্ড লাগানো হয়। কিন্তু গত ২৭ অক্টোবর, মঙ্গলবার ভোরে ওইসব ব্যবসায়ীগণের মদদে দুর্বিত্তরা সাইনবোর্ডটি ভাংচুর করে ফেলে রেখে যায়।

এ ঘটনায় মাদক নির্মূল কমিটির সদস্যগণ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণ তীব্র ক্ষোভ, নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এতে জড়িত দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

কৃতজ্ঞতা: মোঃ সামিউল আলম