নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রামে সঞ্জিত বিশ্বাস নামে এক ব্যক্তির গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে বড়াইগ্রাম থানা পুলিশ। এর আগে সন্ধ্যা রাত থেকে নিখোঁজ ছিলেন সঞ্জিত বিশ্বাস (৫২) নামের এই কৃষক। নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৬টার দিকে উপজেলার নগর জালোড়া বাঁশ বাগান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত সঞ্জীত বিশ্বাস একই গ্রামের সত্যেন বিশ্বাসের ছেলে।

নিহতের পরিবারের সদস্য ও নগর ইউপি চেয়ারম্যান নীলুফার ইয়াসমিন ডালু জানান, গতকাল বুধবার সন্ধ্যার দিকে বাজারে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয় সঞ্জিত বিশ্বাস। পরে প্রায় রাত ৮টার থেকে সঞ্জিত বিশ্বাসের মোবাইল ফোন বন্ধ পায় তার স্বজনরা। রাতেই বিভিন্ন স্থানে তাকে খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। আজ সকাল ৭টার দিকে প্রতিবেশীরা বাড়ি সংলগ্ন বাঁশ বাগানের পাশ দিয়ে চলাচলের সময় রক্তাক্ত একটি মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার অনেকেই বলেন, সঞ্জিত বিশ্বাসের দুটি মেয়ে ছিল। এলাকার বখাটে ছেলেদের অত্যাচারে কিছু দিন আগে এক মেয়েকে বিয়ে দেন তারা। বিষয়টি এলাকার বখাটে প্রকৃতির ছেলেরা ভালভাবে নেয়নি। এ নিয়ে সঞ্জিত বিশ্বাসকে বেশ কয়েকবার হুমকিও দিয়েছে তারা। মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার জন্য এই হত্যাটি হয়ে থাকতে পারে। বিষয়টি সঠিকভাবে তদন্ত করে হত্যাকারীদের শাস্তির দাবি করেন তারা। তা না হলে এলাকার অন্যান্য মেয়ের পরিবারের সদস্যরাও নিরাপত্তাহীনতায় থাকবে।

নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আকরামুল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। মরদেটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

তিনি আরো বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। কী কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা খতিয়ে দেখতে পুলিশের অভিযান শুরু হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে হত্যাকাণ্ডে জড়িতরা পুলিশের হাতে ধরা পড়বে।