ছবি: প্রতীকী

নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে দ্বিতীয় স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় ছানারুল ইসলাম (৩৫) নামে এক স্বামী বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বড়াইগ্রাম থানার এসআই শামসুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ছানারুল উপজেলার জোনাইল ইউনিয়নের চামটা গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছর দুই সন্তানের জনক ছানারুল মোবাইলে বরিশালের এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। ৬ মাস আগে তিনি প্রথম বিয়ের বিষয়টি গোপন রেখে মেয়েটিকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসেন। কিন্তু দ্বিতীয় স্ত্রী ছানারুলের বাড়িতে এসে প্রথম স্ত্রী ও সন্তানাদি দেখে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে ক্ষুব্ধ হন। ১৫ দিন আগে এ নিয়ে কলহের জের ধরে দ্বিতীয় স্ত্রী তাকে ছেড়ে বাবার বাড়ি চলে যান।

এ ঘটনার পর থেকে ছানারুল মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। এক পর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় স্বজনদের অগোচরে তিনি কীটনাশক পান করেন। পরে স্বজনরা বুঝতে পেরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত বরণ করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বড়াইগ্রাম থানার এসআই শামসুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার নিহতের লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।