নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রামে নিখোঁজের দুদিন পর রুমা আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত রুমা আক্তার কুমরুল উত্তরপাড়া মহল্লার আবদুল আলিমের স্ত্রী। বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার কুমরুল গ্রামের একটি আমবাগান থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক বিরোধের জেরে তাকে হত্যার পর মরদেহ আমবাগানে ফেলে রাখা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত রোববার রাতে রুমা আক্তার খাওয়া শেষে ঘরে চলে যায়। এরপর তার আর কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। সকালে পরিবারের লোকজন আত্মীয়-স্বজনদের কাছে খোঁজ করেও তার কোনো সন্ধান পায়নি। তবে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে বাড়ির কাছে একটি আমবাগানের মধ্যে মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক লিটন কুমার সাহা জানান, প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদনে নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে ও নাক মুখ দিয়ে রক্ত বের হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে নিহতের স্বামীর প্রথম স্ত্রী শাহিদা বেগম ও তার মেয়ে আরজিনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। নিহতের স্বামী পলাতক আছে, তাকেও অতি দ্রুত আটক করা হবে।