নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রাম পৌর বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক আব্দুুল জলিল খাঁন বাবু (৫৫) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ইন্তেকাল করেন তিনি। বাবু উপজেলার বড়াইগ্রাম থানা পাড়ার মৃত সোলায়মান খাঁনের ছেলে। মৃত্যুকালে স্ত্রী, দুই মেয়ে, আত্মীয়-স্বজনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন তিনি।

মৃত বাবুর আত্মীয়-স্বজন সুত্রে জানা যায়, বিএনপি নেতা আব্দুুল জলিল খাঁন বাবু হঠাৎ মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে প্রথমে বুকে ব্যাথা অনুভব করলে স্বজনেরা দ্রুত বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আব্দুুল জলিল খাঁন বাবু অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন সাবেক উপমন্ত্রী ও বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. এম রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, বড়াইগ্রাম থানা বিএনপি’র সভাপতি এ্যাডঃ আব্দুল কাদের, বড়াইগ্রাম পৌর বিএনপি’র আহবায়ক এ্যাড. শরিফুল হক মুক্তা, যুগ্ম আহবায়ক মো. বেলাল হোসেন, শামসুল আলম রনি প্রমুখ। শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনাও জানান আব্দুুল জলিল খাঁন বাবু।

এছাড়া বিএনপি নেতা আব্দুুল জলিল খাঁন বাবুর অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে জাসদ নেতা ডিএম আলম বলেন, ১৯৮২’র মধ্য ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে, আমরা পুর্ব বড়াইগ্রামে, বড়াইগ্রাম সরকারি অনার্স কলেজের ৮৫ সাল থেকে তীব্র আন্দোলন শুরু করি, সেই আন্দোলন সংগ্রামের ভাতৃপ্রতিম সংগঠন বিএনপি-ছাত্রদল থেকে একজন নেতা আপোষহীনভাবে সারাক্ষণ আন্দোলনে থাকতেন তৎকালীন বড়াইগ্রাম থানা ছাত্রদলের সভাপতি বন্ধুবর জলিল খাঁন বাবু, একই কলেজের ছাত্র হওয়ার হওয়ার জন্য, আন্দোলন-সংগ্রামে এক সাথে ঘুরতে গিয়ে, অনেক স্মৃতি আমাদের আছে, সেই সময়ের আমাদের আরেক বন্ধু আওয়ামী ছাত্রলীগের একমাত্র নেতা শ্রী রঞ্জিত, আমরা বড়াইগ্রাম কলেজের তিন বন্ধু তিন দলের হলেও, সবাই আমাদের ত্রিরত্ন বলে জানতো, এই অল্প কিছুক্ষণ আগেই আমাদের দুঃখের সাগরে ভাসিয়ে দিয়ে সাথী সহযোদ্ধা জলিল খান বাবু না ফেরার দেশে চলে গেলেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত, তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি, সাথে সাথে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।