নিউজ ডেস্ক: ধুমধামের সঙ্গে বিয়ের মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে নাটোরের বড়াইগ্রামে ট্রাকের ধাক্কায় আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ফারুক হোসেন তালুকদার (৩০) নামে এক এনজিও কর্মী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শফিকুল ইসলাম।

সোমবার (১০ আগস্ট) সন্ধ্যায় মারা যান তিনি। এর আগে রোববার উপজেলার বনপাড়া মহিষভাঙ্গা এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় আহত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। নিহত ফারুক সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার ধুলিশ্বর গ্রামের তোজাম্মেল হকের ছেলে। মাত্র পাঁচদিন আগে (গত বৃহস্পতিবার) ধুমধামের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি।

নিহত ফারুক ফরিদপুর জেলা সদরে বেসরকারি সংস্থা ঠেঙ্গামারা মহিলা সমিতির (টিএমএসএস) একটি শাখার ব্যবস্থাপক পদে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনায় শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছেন ফারুকের নববিবাহিত স্ত্রী ও বাবা-মাসহ আত্মীয়-স্বজন। হাতের মেহেদির রঙ না মুচতেই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা নববধূর স্বপ্নকে ধূলিসাৎ হয়ে গেল।

নিহতের পরিবার ও বনপাড়া হাইওয়ে থানা সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার ফারুক সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার দবিরগঞ্জের শ্বশুরবাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে কর্মস্থল ফরিদপুরে যাচ্ছিলেন। পথে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের মহিষভাঙ্গা এলাকায় একটি দ্রুতগামী ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে মহাসড়কে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন ফারুক। পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় ক্লিনিকে ও পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সন্ধ্যায় মারা যান তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শফিকুল ইসলাম জানান, যে কোনো মৃত্যুই বেদনার। তবে এমন মৃত্যু আরো বেশি কষ্টের। মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনার পরই পালিয়ে যাওয়া ট্রাকটি চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।