নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে নিজের পছন্দের তরুণীর সঙ্গে বিয়ে না দেয়া ও মেয়েটির অন্যত্র বিয়ে হয়ে যাওয়ায় ক্ষোভে অভিমানে মাহফুজুর রহমান মারুফ (২৩) নামে এক তরুণ বাবা-মায়ের সামনেই ইঁদুর মারার বিষাক্ত ট্যাবলেট সেবন করে আত্মহত্যা করেছে।

রোববার (৪ অক্টোবর) রাত ১০টার দিকে উপজেলার কাটাশকোল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মাহফুজ কাটাশকোল গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, মাহফুজ তার নিকট আত্মীয়া এক তরুণীকে পছন্দ করতো। মেয়েটির সঙ্গে তার বিয়ে দেবার জন্য সে একাধিকবার বাবা-মাকে জানিয়েছে। কিন্তু তারা রাজি হননি।

অপরদিকে, সেই তরুণী ও তার স্বজনরাও মাহফুজের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজি ছিলেন না। এ অবস্থায় শনিবার রাতে মেয়েটির অন্যত্র বিয়ের আয়োজন করা হয়। খবর পেয়ে মাহফুজ বাড়িতে গিয়ে মেয়ের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে তার সঙ্গে বিয়ের ব্যবস্থা করার জন্য পুণরায় তার বাবা-মাকে চাপ দেয়।

কিন্তু তারা রাজি না হলে তর্ক-বিতর্কের এক পর্যায়ে বাবা-মায়ের সামনেই মাহফুজ তার পকেটে থাকা বিষাক্ত ট্যাবলেট সেবন করে। পরে দ্রুত তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতেই সে মারা যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বড়াইগ্রাম থানার উপ-পরিদর্শক মমিনুল ইসলাম জানান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। পরে সেখানেই তার পোস্টমর্টেম করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।