নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে আবু রায়হান (৪৯) নামে এক ভুয়া ডাক্তারকে চিকিৎসা সনদ ছাড়া রোগীর চিকিৎসা করার অপরাধে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও চিকিৎসার চেম্বার সিলগালা করেছেন বড়াইগ্রাম উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত।

বুধবার (২২ জুলাই) সন্ধায় উপজেলার নগর ইউনিয়নের বাঘাট বাজারে অভিযান চালিয়ে এই দণ্ড দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার পারভেজ। অভিযুক্ত ডাক্তার আবু রায়হান জালোড়া গ্রামের প্রবীণ গ্রাম্য ডাক্তার আব্দুর রহমানের ছেলে।

জানা গেছে, আবু রায়হান চিকিৎসক নন তবে নিয়মিত রোগী দেখতেন এবং ব্যবস্থাপত্রও দিতেন। সবকিছুই চলতো পল্লী চিকিৎসক বাবা আব্দুর রহমানের প্যাড ব্যবহার করে। বড়াইগ্রাম উপজেলার নগর ইউনিয়নের বাঘাট বাজারে রোকন ফার্মেসী নামে এক ওষুধের দোকানে চেম্বার খুলে রোগী দেখার রমরমা ব্যবসা চালাতেন তিনি। বিষয়টি নজরে আসে কিছু গণমাধ্যমকর্মীর। সেখানে প্রভাবশালী হওয়ায় ও দেন-দরবারের মাধ্যমে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা হয়। এর মধ্যে খবরটি পৌঁছে যায় উপজেলা প্রশাসনের কাছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার পারভেজ জানান, কোন প্রকার চিকিৎসা ও শিক্ষা সনদ না থাকলেও আবু রায়হান এন্টিবায়োটিকসহ অত্যন্ত পাওয়াফুল ঔষধ ব্যবহার করে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করে আসছিলেন। এতে জনস্বাস্থ্য হুমকিতে পড়ছিল। সন্ধ্যায় তার চেম্বারে অভিযানকালেও অন্তত ৫ জন রোগীকে চিকিৎসা করতে দেখা যায়। পরে তাকে আটক করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং তার চেম্বার সিলগালা করে দেয়া হয়। এসময় আবু রায়হান আর কোনদিন চিকিৎসা কার্যক্রম চালাবেন না মর্মে লিখিত মুচলেকা দেন বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আনোয়ার পারভেজ।

অভিযানকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডলি রানী উপস্থিত ছিলেন।