নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রামে মাকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা করেছে আবদুল ওয়াহেদ (২৫) নামে এক ছেলে। তিনি শঙ্কামুক্ত নয় বলে জানিয়েছেন বড়াইগ্রাম হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. খালিদ।

শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বড়াইগ্রাম পৌরসভার মৌখাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বড়াইগ্রাম থানার ডিউটি অফিসার এএসআই শিবলু বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, মৌখাড়া মহল্লার মৃত আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী হালিমা বেগম (৪৮) মাস তিনেক আগে প্রতিবেশী আবদুল হালিমকে বিয়ে করেন। হালিমা দ্বিতীয় বিয়ে করলেও মৃত স্বামীর বাড়িতেই বসবাস করে আসছিলেন। কিন্তু ছোট ছেলে আবদুল ওয়াহেদ তার মায়ের বিয়ের বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি। সে একাধিকবার তার মাকে এ সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য চাপ দেয়। সর্বশেষ শনিবার রাতে পুনরায় এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে আবদুল ওয়াহেদ উত্তেজিত হয়ে তার মাকে ঘরে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে জবাই করে হত্যার চেষ্টা করে। এ সময় তার গোঙানীর শব্দে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে রক্তাক্ত অবস্থায় বড়াইগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করে।

বড়াইগ্রাম হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. খালিদ জানান, তার চিকিৎসা চলছে। ২৪ ঘণ্টা পার না হওয়া পর্যন্ত তিনি শঙ্কামুক্ত কিনা তা বলা যাচ্ছে না।

বড়াইগ্রাম থানার ডিউটি অফিসার এএসআই শিবলু জানান, এ ঘটনায় ভিকটিমের বড় ছেলে আকতারুজ্জামান বাদী হয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।