নিউজ ডেস্ক: নাটোরের বড়াইগ্রামে মাদক (গাঁজা) সেবনে বাধা দেওয়ায় মনিরুজ্জামান (৩৮) নামের এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাজশাহী মেডেকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার (১১ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের গোরস্থানে পাশে এই ঘটনা ঘটে। আহত মনিরুজ্জমান নিশ্চিন্তাপুর গ্রামে আব্দুল আজিজ মাষ্টারের ছেলে ও নিশ্চিন্তাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, অনেকদিন যাবত নিশ্চিন্তপুর গ্রামে সুবা মন্ডলের ছেলে হান্নানের কলার বাগানে একই গ্রামের আহাদ আলীর ছেলে আমজাদ হোসেনসহ (৪০) সাত/আটজন মিলে গাঁজা সেবন করে আসছিল। এ ব্যাপারে হান্নান নিষেধ করেলেও কোন কর্ণপাত না করে মাদক সেবন চালিয়ে যেতে থাকে তারা।

এর মধ্যে রোববার বিকেলে আবারও গাঁজা সেবন শুরু করলে হান্নান বাধা দিলে আমজাদ অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে। এ সময় মনিরুজ্জামান গালিগালাজের প্রতিবাদ করলে গাঁজা কাটার ছুরি দিয়ে পিছন থেকে ছুরিকাঘাত করে।

পরে আহত অবস্থায় মনিরুজ্জামানকে উদ্বার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বড়াইগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক দিলিপ কুমার দাস বলেন, ঘটনা শুনেছি, অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।