নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রামে অজয় গোমেজ (৩৫) নামে এক মুদির দোকানিকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি বাহিমালী গ্রামের মৃত বেঞ্জামিন গোমেজের ছেলে। বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

বুধবার (৩ এপ্রিল) সকালে এ ঘটনায় ৭ জনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এর আগে মঙ্গলবার রাত সোয়া ১১টার দিকে উপজেলার মাঝগাঁও ইউনিয়নের বাহিমালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বর্তমানে অজয় গোমেজ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অভিযোগে জানা যায়, একটি গাছ বিক্রয় ও কাটা নিয়ে অজয় গোমেজের সাথে গাছ ক্রয়কারী বাহিমালী গ্রামের মৃত রিয়াজ সর্দারের ছেলে ভাষা সর্দারের বিরোধ সৃষ্টি হয়। ঘটনার রাতে দোকান বন্ধ করে বাড়ি ফেরার পথে অজয়কে পেছন দিক থেকে আতর্কিত হামলা করে ভাষা সর্দার (৪৫), একই গ্রামের মৃত সাদ আলীর ছেলে আসাদুল হেলু (৩৮), ভাষা সর্দারের ছেলে সেন্টু সর্দার (২৫), মৃত জহির সেখের ছেলে মামুন হোসেন (২০), মৃত রহিম সেখের ছেলে আমিন হোসেন (২০), বাবুল হোসেনের ছেলে কাউসার আলী (২০), আব্দুল মমিনের ছেলে নাজমুল সেখ (২০) সহ সঙ্গীয় ৮/৯ জন। তারা লোহার রড ও গাছের ডালের লাঠি দিয়ে উপর্যুপরে আঘাত করলে অজয়ের আত্ম-চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে আসলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় অজয়কে হাসপাতালে নেয়া হয়। বর্তমানে সে আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তিনি আরো জানান, ঘটনার পর হামলাকারীরা গা ঢাকা দিয়েছে।

বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান জানান, রাতেই খবর পেয়ে এসআই রফিকুল ইসলামসহ সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে অজয় গোমেজ ৭জনকে অভিযুক্ত করে বড়াইগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত পূর্বক অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।