নিজস্ব প্রতিবেদক: বড়াইগ্রাম উপজেলায় মোবাইল ফোনে বন্ধুত্বের সুযোগে ডেকে নিয়ে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগে চাঁদ আলী ও রাজু নামের দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, লালপুর উপজেলার এক গৃহবধূর সঙ্গে মুঠোফোনে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে ওঠে বড়াইগ্রামের কৃষক চাঁদ আলীর সঙ্গে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চাঁদ আলী ফোন করে ওই গৃহবধূর সঙ্গে দেখা করতে চান। গৃহবধূ বড়াইগ্রামের ভবানীপুর গ্রামে গেলে চাঁদসহ চার-পাঁচজন তাঁকে জোর করে পাশের একটি জমিতে নিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে ওই গৃহবধূ লালপুরের ওয়ালিয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে অভিযোগ করলে সেখানকার পুলিশ বড়াইগ্রাম থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে। পরে আসামি ধরতে উভয় থানা পুলিশ অভিযান চালায়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিদর্শক (তদন্ত) মো. সুমন আলী জানান, পুলিশ রাতে অভিযুক্ত উপজেলার ভবানীপুর আটঘরি গ্রামের জসিমউদ্দিন সেখের ছেলে রাজু আহমেদ (২০) ও প্রেমিক একই গ্রামের মইনউদ্দিন ফকিরের ছেলে এবং স্থানীয় ইটভাটার শ্রমিক চান মিয়া ফকির (২৮) কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নাটোর জেল হাজতে প্রেরণ করে। মামলার অপর তিন আসামিকে আটকের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় আজ বড়াইগ্রাম থানায় একটি মামলা করা হয়। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গৃহবধূকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।